নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

  ০৭ জুলাই, ২০২৪

হাজীগঞ্জ-নবীগঞ্জ

নারায়ণগঞ্জে দুটি ফেরিঘাট পানির নিচে, সংস্কারের দাবি

ফেরিঘাটটি নিচু হওয়ায় পানি বাড়লে প্রায় ডুবে যায় * দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা * সংস্কারের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ ও জনবল পাঠানো হয়েছে বলে জানান সওজ কর্মকর্তা

নারায়ণগঞ্জ থেকে বন্দর যোগাযোগের অন্যতম পথ হাজিগঞ্জ-নবীগঞ্জ ফেরিঘাট তলিয়ে গেছে পানির নিচে। গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে শীতলক্ষ্যা নদীর পানি অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে ফেরিঘাটটি তলিয়ে নারায়ণগঞ্জ-বন্দরের যোগাযোগে বেড়েছে ভোগান্তি।

সেইসঙ্গে ফেরি ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সারি তৈরি হয়েছে। আবার অনেককেই গাড়ি ঘুরিয়ে বিকল্পভাবে গন্তব্যে যাওয়ার উদ্দেশ্যে যেতে দেখা যায়। এতে যাত্রীসহ মালবাহী গাড়িগুলো দুর্ভোগে পড়ছে।

গতকাল শনিবার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে ছোট ছোট গাড়ির চালকদের। ফেরিঘাটটি নিচু হওয়ায় পানি বেড়ে গেলেই প্রায় সময় এটি ডুবে যায়। এমন অবস্থা প্রায়শই সৃষ্টি হয় জানিয়ে ফেরি ঘাটটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়ে দুর্ভোগ থেকে রক্ষা করতে দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আশেপাশে কোনো সেতু না থাকায় প্রতিদিন হাজারো যানবাহন এই ফেরিঘাট দিয়ে পারাপার হয়। এর মধ্যে অধিকাংশ যানবাহন বিভিন্ন পণ্যবাহী। অথচ এই ফেরি ঘাটটি বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় এমন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যাত্রীসহ চালকদের।

উজ্বল হোসেন নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, মালামাল আনা নেওয়ার জন্য সব সময় এই ঘাটটি ব্যবহার করতে হয়। আজ এসে দেখেন ফেরি ঘাটের রাস্তাটি পানির নিচে চলে গেছে। এর ফলে এই সড়ক দিয়ে ফেরিতে যেতে অনেক কষ্টের সম্মুখীন হতে হচ্ছে পাশাপাশি মালামাল পানিতে পড়ে যাওয়ার অনেক ঝুঁকি আছে বলে জানান তিনি।

লিটন নামে এক ভ্যানচালক বলেন, আগে থেকেই এই ফেরিঘাট দিয়ে ফেরিতে যেতে অনেক কষ্টের সম্মুখীন হতে হয়। আজ আরো বেশি সমস্যায় পড়তে হয়েছে।

শেখ সুমন নামের আরেক ব্যবসায়ী বলেন, এর আগেও এখান দিয়ে মালামাল নিয়ে পারাপার হতে গিয়ে আমাদের এমন সমস্যা পড়তে হয়েছে। তাই তাদের সমস্যা বিবেচনা করে কর্তৃপক্ষের কাছে এই ঘাটটি আধুনিকায়নের দাবি জানান তিনি।

জানতে চাইলে ফেরি ঘাটের তত্ত্বাবধায়ক সাইফুল ইসলাম রিয়েল বলেন, ‘এ সম্পর্কে নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর ভালো বলতে পারবেন। এটা তাদের দায়িত্ব।’

নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের (সওজ) উপ সহকারী প্রকৌশলী মোতালেব জানান, সংস্কারের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ ও জনবল পাঠানো হয়েছে। দ্রুত এ সমস্যার সামধান হয়ে যাবে বলে তিনি আশা করেন।

এ বিষয়ে জানতে নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী শাহানা ফেরদৌসকে একাধিকবার মোবইল ফোনে কল দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close