গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

  ২২ জুন, ২০২৪

গোপালগঞ্জে অভিযোগ

বিদ্যালয়ে নিয়োগ বাণিজ্য প্রধান শিক্ষক-সভাপতির

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার রঘুনাথপুর দীননাথ উচ্চ বিদ্যালয়ে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগে আদালতে মামলা করেছেন নৈশ প্রহরী পদে চাকরি প্রার্থী ভোলা বিশ্বাস। এই নিয়োগ প্রক্রিয়া চালিয়ে যাচ্ছেন ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুশান্ত কুমার বিশ্বাস ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি রমেন্দ্রনাথ সরকার। এমনই অভিযোগ ভোলার।

মামলা সুত্রে ও মামলার বাদী ভোলা বিশ্বাস জানান, তিনি রঘুনাথপুর দীননাথ উচ্চ বিদ্যালয়ে গত ২০২১ সালের পহেলা অক্টবর থেকে দৈনিক ৩০০ টাকা মজুরি ভিত্তিতে বিদ্যালয়ের রাতে এবং দিনে অস্থায়ী নিযোগে কাজ করেছেন। প্রধান শিক্ষকের বাসা বাড়িতেও বিভিন্ন কাজ করেন তিনি। স্থায়ী নিয়োগের আশায় ৩ বছরের অধিক সময় ধরে তিনি প্রধান শিক্ষক সুশান্ত কুমার বিশ্বাসের কথামত পরিশ্রম করলেও সম্প্রতি বিদ্যালয়ে নিয়োগে তার কাছে ৬ লাখ টাকা দাবি করেন প্রধান শিক্ষক। তিনি বলেন, নিয়োগ বোর্ডের কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে তাকে নিয়োগ দিতে হবে। অন্যথায় স্কুলের সভাপতির প্রার্থী আছে তারা মোটা অংকের টাকা দিতে রাজি, তাকেই নিয়োগ দেওয়া হবে।

পরে প্রধান শিক্ষকের হাত, পা ধরে ভোলা বিশ্বাস বলেন, ‘স্যার আমি অতি গরিব মানুষ, মা নেই, বাবা অসুস্থ বিছানায় পড়া। এমন অবস্থায় টাকা দেওয়ার মত ক্ষমতা আমার নেই।’ তখন তিনি ভোলাকে নিয়োগ দেওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেন। পরে নিরুপায় হয়ে গোপালগঞ্জ সদর সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা করতে বাধ্য হন বলে জানান তিনি।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান জানান, তিনি শুনেছেন ওই স্কুলের নিয়োগ বিষয়ে আদালতে মামলা হয়েছে। আদালতের প্রতি সম্মান দেখিয়ে নিয়োগ প্রক্রিয়া দেরিতে করা উচিত।

এদিকে এ ব্যাপারে রঘুনাথপুর দীননাথ উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সুশান্ত কুমার বিশ্বাসের মুঠো ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

জেলা প্রসাশকের প্রতিনিধি সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট রাসেল মুন্সি জানান, তিনি এখনো নিয়োগ সংক্রান্ত কোনো কাগজপত্র দেখেননি। আদালতের মামলার কপিও পাননি। তবে আদালতে মামলা হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close