নড়াইল প্রতিনিধি

  ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

নড়াইল

সড়কে ফসল মাড়াই ঘটছে দুর্ঘটনা

জানেন না জেলা প্রশাসক * আট বছরে ১ মৃত্যু, কয়েক শ আহত, পঙ্গু ১০

নড়াইলের আঞ্চলিক ও অভ্যন্তরীণ সড়কে বিভিন্ন ধরনের ফসল মাড়াই করা হচ্ছে। এতে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। অন্যদিকে, যানবাহনগুলোর গন্তব্যে পৌঁছতেও দেরি হচ্ছে। এতে বিপাকে পড়ছেন যাত্রীরা।

জানা গেছে, সড়ক ও জনপথের ১৭০ কিলোমিটার এবং এলজিইডির ২ হাজার ২৯৫ কিলোমিটার পাকা ও কাঁচা সড়ক রয়েছে। প্রায় ১০ বছর ধরে নড়াইল-গোবরা-সিঙ্গাশোলপুর-পেড়লি, নড়াইল-মাইজপাড়া, নড়াইল-মুলিয়া, নড়াইল-মানিকগঞ্জ-লাহুড়িয়া, লোহাগড়া-মহাজন, নড়াইল-কালিয়া, নড়াইল-শংকরপাশা, নড়াইল-ফুলতলা, কালিয়া-চাপাইলসহ প্রত্যেকটি সড়কের উপর বিভিন্ন মৌসুমি ফসল শুকানো এবং মাড়াই করা হচ্ছে। এসব সড়ক যেন হয়ে উঠেছে উঠোন। আউস, আমন, বোরো, খেসাড়ি-মসুর ডাল, গমসহ মৌসুমের বিভিন্ন ফসল এখন রাস্তার ওপরই মাড়াই ও শুকানো হচ্ছে।

গাড়ির চালক, যাত্রী ও পথচারীরা জানান, সড়কে ফসল শুকানোর প্রতিবাদ করলে স্থানীয় কৃষকদের হাতে লাঞ্ছিতের শিকার হতে হয়। অটোরিকশা চালক সুফিয়ান শেখ বলেন, সড়কগুলোর ওপর কৃষকেরা সারা বছরই বিভিন্ন ফসল মাড়াই ও শুকিয়ে থাকে। ফলে গাড়ির চাকা ও মোটরসহ বিভিন্ন যন্ত্রাংশে ফসল জড়িয়ে চলাচল বাধাগ্রস্ত হয় আবার যানবাহনের ক্ষতি হয়ে থাকে।

সদরের তারাপুর গ্রামের নওশের মোল্যা (৬৫) বলেন, ‘বাফুরে (বাবা) বুঝি মানুষের ক্ষতি হয় কিন্তু কি করবো, বৃষ্টি-বর্ষার জন্যি পাকা রাস্তার উপর ফসল শুকাতি সুবিদে হয়। তাছাড়া বাড়ির উঠানেও কাদা হয়ে গেছে।’

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) নড়াইল জেলা শাখার সভাপতি সৈয়দ খায়রুল আলম বলেন, রাস্তার উপর ফসল শুকানো ও মাড়াইয়ের কারণে সড়কে দুর্ঘটনা বাড়ছে। আট বছরে কমপক্ষে ১ জনের মৃত্যু, কয়েকশ মানুষ আহত এবং প্রায় ১০ জন পঙ্গুত্ববরণ করেছেন। জনসচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি আইন করে সড়কে ফসল মাড়াই বন্ধ করা প্রয়োজন।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আশফাকুল হক চৌধুরী বলেন, এ বিষয়টি জানা নেই। আপনার কাছেই প্রথম শুনলাম। রাস্তায় যাতে কেউ কোনোপ্রকার ফসল শুকাতে না পারে সেজন্য প্রত্যেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে অবগত করা হবে এবং আইনশৃঙ্খলার সভায় বিষয়টি তোলা হবে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close