গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

  ০৮ ডিসেম্বর, ২০২২

কাশিয়ানীতে শিক্ষকের বাড়ি দখলের চেষ্টা

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে স্কুলশিক্ষকের বাড়ি দখলের চেষ্টা ও পরিবারের সদস্যদের জীবননাশের হুমকির অভিযোগ উঠেছে রাজাকারপুত্র হারুন অর রশীদ মোল্যার বিরুদ্ধে। আতঙ্কে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে ওই পরিবারটি। এ ঘটনায় কাশিয়ানী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে ভুক্তভোগী পরিবার।

ভুক্তভোগী শিক্ষক নিরোদ বরণ রায় জানান, রামদিয়া এলাকায় পৈত্রিক সম্পত্তি ভোগ দখল করে আসছেন তিনি। ২০ বছর আগে মৃত খেয়াল উদ্দিনের ছেলে হারুন অর রশীদ মোল্লা বরণ রায়ের কাছ থেকে ১৩ শতাংশ জমি ক্রয় করেন।

তিনি জায়গা বুঝে পেয়ে সেখানে ঘর তৈরি করে বসবাস করে আসছেন। পরবর্তীতে হারুন মোল্যা তার জায়গা কম আছে বলে বিভিন্ন সময় ওই শিক্ষকে চাপ দিতে থাকেন। এ ঘটনায় বেথুড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইমরুর হাসানসহ এলাকার গণ্যমাণ্য ব্যক্তি হারুন অর রশীদকে পুনরায় তার জায়গা বুঝিয়ে দেন। হারুন মোল্লা ১৩ শতাংশের মালিক হলেও তিনি আরো তিন শতাংশ বেশী ভোগ দখল করে আসছেন। ইউপি চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান অনুরোধ করে ওই বাড়তি তিন শতাংশ জমিও হারুন মোল্লাকে দিয়ে দেন। এরপরও হারুন মোল্লা তার লোকজন নিয়ে প্রতিনিয়ত শিক্ষকের বাড়ি দখলের পাঁয়তারা চালাচ্ছে।

তবে হারুন মোল্লা বলেন, আমি আমার জমি বুঝে পাইনি। সেজন্য এ ধরনের কাজ আমাকে করতে হচ্ছে। আবার মাপ দিয়ে আমার জমি বুঝে দিলে আমি সরে যাব।

স্থানীয়রা জানান, আসলেই হারুন মোল্লা একজন দখলদার। তাদের পূর্ব ইতিহাস আরো খারাপ। তার বাবা খেয়াল উদ্দিন ছিলেন এ এলাকার নামকরা রাজাকার। তারা এ ধরনের কাজে ভয় পায় না। তবে হারুন মোল্লা বলেন, আমার বাবা রাজাকার ছিলেন বলেই এ এলাকার অনেকের জীবন ও সম্পদ রক্ষা হয়েছে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close