মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি

  ০৯ ডিসেম্বর, ২০২১

১৭ হাজার হেক্টর জমির আলুবীজ নষ্টের শঙ্কা

তিন দিনের টানা বৃষ্টিতে মুন্সীগঞ্জে ১৭ হাজার হেক্টর জমিতে রোপণকৃত আলুবীজ পচে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। ছয় উপজেলায় ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের কারণে আলু উৎপাদনের স্বপ্ন এখন পানির নিচে। ফলে কৃষকদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

জানা গেছে, অগ্রহায়ণের মাঝামাঝি সময় থেকে বিভিন্ন উপজেলায় আলু রোপণ শুরু হয়েছে। এ বছর জেলায় আলু রোপণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৭ হাজার ৯০০ হেক্টর জমিতে।

গত শনিবার দুপুর পর্যন্ত জেলায় ১৭ হাজারের বেশি হেক্টর জমিতে আলুবীজ রোপণ করা হয়। যেসব খেতে আলুর চারা গজিয়েছে সেটির খুব ক্ষতি হবে না বলে জানায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। ১০-১৫ দিন আগে লাগানো আলু পচবে না। কিন্তু ৫-৮ দিন আগে যে আলু রোপণ করা হয়েছে সেগুলো পচে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

গজারিয়া উপজেলার কৃষক জসিম প্রধান বলেন, ‘গত এক সপ্তাহে দুটি জমিতে আলুবীজ রোপণ করেছি। এখন কড়ি গজানোর সময় কিন্তু বৃষ্টিতে জমিতে পানি জমে গেছে। জমি চকের মাঝখানে থাকায় পানি সরাতে পারছি না। এমনিতেই গত মৌসুমে আলুর দাম পাওয়া যায়নি।’

বাঘাইকান্দি গ্রামের জসিম প্রধান আলী নামে আরেক কৃষক বলেন, ‘পানির নিচে থাকলে আলুগুলো নষ্ট হয়ে যাবে। কিছু দিন আগেই লাগিয়ে ছিলাম। আমাদের অনেক ক্ষতি হয়ে গেল। জানি না কীভাবে ঋণ শোধ করব।’

টঙ্গিবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ বছর উপজেলার প্রায় ৯ হাজার ৯০০ হেক্টর জমিতে আলুর আবাদ করা হবে। এরইমধ্যে প্রায় অর্ধেক জমিতে আলু রোপণ করা হয়েছে। বাকি জমিতে আলু রোপণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন উপজেলার বিভিন্ন এলাকার কৃষক। তবে অনাকাক্সিক্ষত বৃষ্টিতে কৃষকের জমিতে পানি জমে গেছে। এতে একদিকে রোপণ করা আলুতে পচন ধরেছে অন্যদিকে আলু রোপণ করার জন্য প্রস্তুত করা জমিতে পানি জমে যাওয়ায় রোপণকাজ বন্ধ রাখতে হচ্ছে।

গজারিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তৌফিক আহমেদ নুর জানান, উপজেলায় এ মৌসুমে ২ হাজার ৪৬৫ হেক্টর জমিতে আলু আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এখন পর্যন্ত ১ হাজার ৪১০ হেক্টর জমিতে আলুবীজ রোপণ করা হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. খোরশেদ আলম বলেন, এ মৌসুমে জেলায় ৩৭ হাজার ৯০০ হেক্টর জমিতে আলুবীজ রোপণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। বৃষ্টির আগ পর্যন্ত জেলায় ১৭ হাজার হেক্টর জমিতে আলু রোপণ করা হয়েছে। রোপণকৃত আলুবীজের ১৭ হাজার হেক্টর জমির আলু পচে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close