সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

  ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

তরুণীর রহস্যজনক মৃত্যু পরিবারের দাবি হত্যা

সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকায় কামরুন্নাহার কেয়া (১৯) নামে এক তরুনীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর এ্যাকসিডেন্ট বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা চলছে। গত বুধবার রাতে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। কেয়া সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার দিয়ার ধানগড়া মহল্লার কালাম শেখের মেয়ে।

নিহতের বাবা বলেন, বুধবার সকাল ১১টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয় কেয়া। এরপর আর ফিরে আসেনি। বিকালের দিকে খবর পাই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কে বা কারা হাসপাতালে ভর্তি করেছে জানা যায় নাই। হাসপাতালে কেয়ার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়ায় রেফার্ড করা হয়। বগুড়ায় নেয়ার জন্য এ্যাম্বুলেন্সে তুলতেই সে মারা যায়।

কালাম শেখ আরও বলেন, গত বছরের এপ্রিলে একই মহল্লার দুলাল শেখে দুলুর ছেলে তানভীর শেখ বাপ্পীর সঙ্গে কেয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকে বাপ্পী ও তার পরিবার। যৌতুক দিতে না পারায় কেয়ার ওপর নির্যাতন চালায় শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এ অবস্থায় বিয়ের প্রায় দুমাস পর মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে আসেন তিনি। তানভীর শেখ বাপ্পীই কেয়াকে কৌশলে ডেকে নিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ করেন কালাম শেখের।

সদর থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত মামলা হয়নি। তবে কেয়ার মৃত্যুর ঘটনায় তার স্বামী বাপ্পিকে অসুস্থ অবস্থায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। সন্দেহজনক আসামি হিসেবে তাকে হাসপাতালে নজরদারিতে রাখা হয়েছে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close