ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি

  ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

করলার মাচায় লাউ চাষ

ধামরাইয়ের রোয়াইল ইউনিয়নের চরসুঙ্গর গ্রামে অন্যান্য সবজি চাষের পাশাপাশি করলার মাচায় লাউ চাষ করে লাভবান হয়েছেন আসমান খান। কারণ লাউ চাষে সার, কীটনাশক ও মজুরি খরচ অন্য সবজি চাষের চেয়ে কম। ফলন ভালো হওয়ায় লাভও বেশি। ফলে এলাকার লাউ চাষে আগ্রহ বেড়েছে কৃষকের।

উপজেলার চরসুঙ্গর বিষমুক্ত সবজি চাষের জন্য বিখ্যাত। সবজি চাষে খরচ কম, লাভ বেশি হওয়ায় এলাকায় বিভিন্ন সবজি চাষে আগ্রহ বেড়েছে। এ ছাড়া ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় সবজি সরবরাহের জন্য যাতায়াত ব্যবস্থা ভালো থাকায় বেশি দামে বিক্রি করা যায়। জমিতে সবজির ফলন খুব ভালো হয়েছে বলে জানান কৃষকরা।

কৃষক মো. আসমান খান জানান, প্রথমে ২৪ শতাংশ জায়গায় করলা চাষ করেন। সেখানে লাইলন সুতা, জিআই তার ও বাঁশের খুঁটির ওপর করলা চাষের জন্য মাচা তৈরি করা হয়। করলা চাষ শেষ হলে সেই মরা গাছের মাঝে মাঝে লাউগাছের বীজ বপন করা হয়। এতে খরচ হয় মাত্র ৫০০ টাকা। বর্তমানে কয়েক হাজার টাকার লাউ বিক্রি করেছেন তিনি।

মো. নুর ইসলাম জানান, গত বছর এক বিঘা জমিতে করলা চাষে ভালো লাভবান হয়েছেন। একই মাচায় লাউ চাষ করে ফলন ভালো হয়েছে। করলার মাচায় লাউ চাষ ভালো হয়, কারণ লাউগুলো নিচের দিকে ঝুলে থাকে। এতে লাউয়ের গায়ে কোনো ধরনের দাগ লাগে না। ফলে বাজারে চাহিদা ও দাম ভালো পাওয়া যায়।

মেছের আলী জানান, এক বিঘা জমিতে করলা চাষে খরচ হয়েছে ১৫ হাজার টাকা। আর সেই একই মাচায় লাউ চাষে খরচ হয়েছে মাত্র ৭ টাকা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে দেড় থেকে দুই লাখ টাকার লাউ বিক্রি করা যাবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আরিফুল হাসান জানান, উপজেলায় এ বছর প্রায় ১৬ হাজার হেক্টর জমিতে বিভিন্ন রকমের সবজি চাষ হয়েছে। সব ধরনের সবজি চাষে কৃষি অফিস থেকে নিয়মিত পরামর্শ ও সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close