খুলনা ব্যুরো

  ০৮ আগস্ট, ২০২২

দুর্ঘটনা এড়াতে ডিজিটাল ট্রাফিক সাইন সিগন্যাল স্থাপনের দাবি খুলনায়

খুলনায় ডিজিটাল ট্রাফিক সাইন সিগন্যাল স্থাপনসহ ৫ দফা জানিয়েছে নিরাপদ সড়ক চাইয়ের (নিসচা) খুলনার মহানগর শাখা। রবিবার (৭ আগস্ট) দুপুরে খুলনা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে ৫ দফা দাবি জানায় সংগঠনটি। ৫ দফা দাবিতে বলা হয়েছে, নগরীর সব সড়কে ডিজিটাল ট্রাফিক সাইন সিগন্যাল স্থাপন। দখল মুক্তকরণ, সড়কে ইট-বালু ব্যবসা বন্ধ করা, রিকশা-ইজিবাইকের চালকদের ট্রাফিক প্রশিক্ষণ প্রদান এবং অবৈধ ইজিবাইক, লাইসেন্সহীন থ্রি-হুইলার, মাহেন্দা, ট্রলি ও ইঞ্জিনচালিত রিকশা বন্ধ করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নিসচার উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, ট্রাফিক সাইন, রাস্তায় গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রে অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে, দেশের তৃতীয় বৃহৎ মহানগরী খুলনার সড়কে ট্রাফিক সাইন নেই। অথচ সড়ক দুর্ঘটনারোধে এটি একটি কার্যকর ব্যবস্থা। বর্তমান সরকার সারা দেশে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল কার্যক্রম পরিচালনা করছে এবং এর সুফল জনগণ পাচ্ছে। সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে। এ আইন যথাযথভাবে প্রয়োগ করার আগে খুলনা নগরীতে ট্রাফিক সাইন সিগন্যাল স্থাপন অত্যন্ত জরুরি। এটি বাস্তবায়ন হলে জনগন ট্রাফিক আইন মান্য করার সুযোগ পাবে। নগরীতে ট্রাফিক সাইন সিগন্যাল স্থাপন না করে সড়ক দুর্ঘটনারোধে যত্রতত্র স্পিড ব্রেকার নির্মাণ করে, স্পিড ব্রেকারের নগরীতে পরিণত করা হয়েছে। অন্যদিকে সড়ক ও জনপথের অপরিকল্পিত কার্মকাণ্ডে দুর্ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। রূপসা সেতু বাইপাস সড়কে তারা মানুষের চলাচলের পথ বন্ধ করে সড়ক দুর্ঘটনারোধ স্পিড ব্রেকার নির্মাণ করা হয়েছে। একটি মহাসড়কে কোনোভাবেই কাম্য নয়। তাদের এসব কর্মকাণ্ড জনদুর্ভোগের কারণ। একই সঙ্গে সওজ নগরীর শেরেবাংলা রোডের নির্মাণকাজও শেষ করতে পারেনি। দীর্ঘ একযুগেও রূপসা-শিপইয়ার্ড সড়ক সংস্কার করতে পারেনি কেডিএ। নিরাপদ সড়ক চাইয়ের (নিসচা) খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লবের সভাপতিত্বে ও খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মুন্না সঞ্চালনা করেন।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close