নিজস্ব প্রতিবেদক

  ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

হাতিরঝিলের মতো জলাধার হবে বেড়িবাঁধ এলাকায়

রাজধানীর হাতিরঝিলের অনুরূপ আরো একটি জলাধার করার পরিকল্পনা করছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। সেখানে থাকবে ওয়াকওয়ে, বাচ্চাদের জন্য ওয়াটার পার্ক, জলকেলিসহ নানা বিনোদনমূলক ব্যবস্থা। রাজধানীর গাবতলী বেড়িবাঁধ সংলগ্ন স্লুইচগেটের পাশে ওয়াসার ‘রিটেনশন পন্ডটি’ সাজানো হবে হাতিরঝিলের আদলে- এমনটি জানালেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

গতকাল সোমবার গাবতলী স্লুইচগেট সংলগ্ন ওয়াসার পাম্পের পাশে থাকা অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেছেন, ওয়াসার ক, খ, গ, ঙ ও চ এই পাঁচটি খাল কিন্তু আছে বাউন্ডারি ওয়ালের পূর্ব দিকে। পর্যায়ক্রমে পাঁচটি খাল নিয়ে পরিবেশবাদীদের সঙ্গে কথা বলেছি। সবাইকে নিয়ে হাতিরঝিলের অনুরূপ রিটেনশন পন্ডটি আরেকটি অনুরূপ হাতিরঝিল প্রকল্প হবে।

যেখানে থাকবে সবার জন্য হাঁটার জায়গা। বাচ্চারা এসে সুইমিং করতে পারবে। বাচ্চারা ঘুরতে পারবে, বাটার ফ্লাই পার্ক থাকবে। পরিকল্পনা করে ফেলেছি। এটি করলে আমার লাভ হবে না, ভবিষ্যৎ প্রজন্মের লাভ হবে। এজন্য দখলমুক্ত করতে হবে। রিটেনশন পন্ড এখানে ৫২ একর জমি সরকার কর্তৃক অধিগ্রহণ করে তাদের তিন গুণ টাকা দিয়েছে, যেখানে সরকার কর্তৃক তিন গুণ টাকা দিয়ে দেওয়া হয়ে সেখানে ৫২ একর জমি পুরোটাই দখল হয়ে গেছে, এটা কীভাবে সম্ভব হলো! এটি অত্যন্ত জঘন্য কাজ। আমরা অন্যায়ের প্রতিবাদ করব। সেই ৫২ একর জমি খুব শিগগিরই উদ্ধার করব।

তিনি বলেন, ওয়াসার ক, খ, গ, ঙ ও চ খাল নিয়ে আমাদের ডিজাইন হয়ে গেছে। আমরা এটাকে মন্ত্রণালয়ে পাঠাব, সেখান থেকে একনেক সভায় পাস হলে কাজ হবে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা যেখানে দাঁড়িয়ে আছি বেড়িবাঁধ স্লুইচগেট এলাকায়। এই জায়গাতে বেশ কিছু বাউন্ডারি করে ফেলেছি গত দুই বছর পর্যন্ত কিন্তু কিছু কিছু জায়গায় পকেট রয়ে গেছে। এই পকেট বাউন্ডারি ওয়ালের পূর্ব দিকে জায়গাগুলো অবৈধভাবে দখল করেছে। এখানে প্রায় সাড়ে পাঁচ একর জমি অর্থাৎ প্রায় ২০ বিঘা জমি আমরা যদি প্রাচীরটা করে দিতে পারি তাহলে পুরা জমি আমাদের দখলে চলে আসবে।’ তিনি বলেন, আগে এই প্রাচীর করতে পারছিলাম না। এখানে কেউ একজন পরিচয় দেন তিনি একজন ডিআইজি। আমাদের যেই কাজ করতে আসেন তার নামে মামলা দিতে চান, ভয় দেখান। এখানে আমাদের জায়গার ওপর দিয়ে ট্রাক নিয়ে তারা ভেতরে ওয়ার্কশপ করেছে। দুই পাশে বাউন্ডারি ওয়াল মাঝখানে তারা পথ বানিয়ে ফেলেছে। সব ট্রাক ভেতরে থাকত।

মেয়র বলেন, ‘ওরা অত্যন্ত মাসলম্যান, প্রভাবশালী। এলাকর প্রভাবশালী। তারা কখনো রাজনৈতিক পরিচয় দেন, কখনো ক্ষমতার দাপট দেখান। কিন্তু আজকে কাউন্সিলরসহ অত্র এলাকার সবাইকে নিয়ে আসছি। এখন পর্যন্ত কোনো অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটেনি। তার মানে যারা মুখে বলে তাদের জায়গা, যদি জমি বৈধ থাকত তাহলে তারা আজকে আপনাদের সামনে ফেস করত। কেউ কিন্তু কাগজ আনতে পারছে না। সুতরাং আমাদের অভিযান চলমান থাকবে। আজ ঢাকা শহরের প্রায় ২০ বিঘা জমি উদ্ধার করা হয়েছে। মিরপুর এই এলাকাতে কোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতা ছাড়াই উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি।’

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close