প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ২৫ জুন, ২০২৪

দুই উপজেলায় ভিজিএফের চাল বিক্রি, তদন্ত কমিটি গঠন

ঈদুল আজহা উপলক্ষে দরিদ্রদের জন্য বরাদ্দ ভিজিএফের চাল বিক্রির ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ ও রাজিবপুরের মোহনগঞ্জে এসব ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে গতকাল সোমবার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে প্রধান করে ২ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক এস এম রফিকুল ইসলাম। তিনি জানান, দ্রুত সময়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। গত ২২ জুন দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ পত্রিকাসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ‘কালীগঞ্জে ২৬৪ বস্তা ভিজিএফের চাল বিক্রির অভিযোগ’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এ সংবাদ প্রকাশের পর নড়েচড়ে বসে প্রশাসন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১৫ জুন ২৬৪ বস্তা চাল কালীগঞ্জ খাদ্য গুদামে ডিও দেখিয়ে মহেশপুরের খালিশপুর বাজারের দিপুর দোকানে বিক্রি করা হয়।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইশরাত জাহান জানান, চাল বিক্রির ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই তিনটি ইউনিয়নে ট্যাগ অফিসার কারা ছিলেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, যেহেতু তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে সেহেতু তারাই বিষয়টি দেখবেন।

উল্লেখ্য, ঈদুল আজহার দুদিন আগে গত ১৫ জুন কালীগঞ্জ খাদ্য গুদাম থেকে ৪টি শ্যালোইঞ্জিন চালিত নসিমনে (আঞ্চলিক যান) ২৬৪ বস্তা ভিজিএফের চাল নিয়ে মহেশপুর উপজেলার খালিশপুরের একটি দোকানে বিক্রি করা হয়। প্রতিটি গাড়িতে ৬৬ বস্তা চাল ছিল।

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) : রৌমারীর রাজিবপুরের গতকাল সোমবার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. রতন মিয়ার নেতৃত্বে একটি টিম তদন্ত শুরু করেন। তদন্ত টিমের অন্যরা হলেন উপজেলা প্রোগ্রাম অফিসার ইসমাইল হোসেন ও ঢুষমারা থানার এসআই আবদুল হালিম। তদন্ত শেষে সাংবাদিকদের এক বিবৃতিতে তারা জানান, তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। তদন্ত প্রতিবেদন আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে দেওয়া হবে।

গত ১৩ জুন ঈদুল আজহায় মোহনগঞ্জ ইউনিয়নের জন্য বরাদ্দ হয় ৬৩ দশমিক ৮৮০ টন চাল। কিন্তু ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন প্রায় সাড়ে ৮ টন চাল সরিয়ে ফেলেন ও কালোবাজারে বিক্রি করেন। পরে এলাকাবাসী ওই চাল আটক করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তারভীর আহমেদকে খবর দিলে তিনি মোহনগঞ্জ বাজারের ৫টি দোকানঘর থেকে চাল উদ্ধার ও দোকানঘরগুলো সিলগালা করেন। এ ঘটনার তদন্তের জন্য উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে আহ্বায়ক করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close