গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি

  ২২ জুন, ২০২৪

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট

ভোগান্তি ছাড়াই কর্মস্থলে ফিরছেন মানুষ

ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফিরতি পথে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাট দিয়ে ভোগান্তি ছাড়াই ফিরছেন মানুষ। গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঘাট এলাকা ঘুরে দেখা যায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট পদ্মা নদী পাড়ি দিয়ে কর্মস্থলে ফিরছেন মানুষ। ঘাট এলাকায় আগের মতো কোনো যানজট দেখা যায়নি। ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস, মাইক্রোবাসসহ সব যানবাহন সরাসরি ফেরিতে উঠছে। যাত্রীরা বলছেন, ঈদ শেষে স্বজনদের রেখে কর্মস্থলে ফিরতে কষ্ট হচ্ছে। তবে ঘাট এলাকায় ভিড় না থাকায় স্বস্তির কথাও জানান তারা।

যশোর থেকে আসা ঈগল পরিবহনের যাত্রী সাইফুল ইসলাম বলেন, গত বছরে অনেক কষ্ট করে কর্মস্থলে ফিরতে হয়েছে। এবার ঘাটে কোনো যানজট বা দুর্ভোগ ছাড়াই সহজে ফেরিতে উঠতে পেরেছি। স্বস্তিতে কর্মস্থলে পৌঁছাতে পারব, এটা আসলেই অনেক আনন্দের।

গোল্ডেন লাইন পরিবহনের যাত্রী সজিব বলেন, ঈদের আগে ঘাট পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল। সুন্দরভাবে বাড়িতে ফিরতে পেরেছি। আজ আবার কর্মস্থলে ফিরছি। এটাও অনেক স্বস্তির। কোথাও কোনো ভোগান্তি নেই। ভোগান্তি ছাড়াই রাজধানীতে পৌঁছাতে পারব বলে আশা করি। নিজের কাছে খুব আনন্দ লাগছে।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার অফিস ইনচার্জ প্রাণবন্ধু বলেন, ঈদ শেষে মানুষ কর্মস্থলে ফিরছেন। ফেরিঘাটের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বভাবিক রাখতে দৌলতদিয়া নৌ পুলিশ, জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসনসহ প্রশাসনের বিভিন্ন সংস্থা কাজ করছে। আশা করছি এবার অন্যান্য বছরের থেকে যাত্রী ও যানবাহনের পারাপার হবে ভোগান্তি ছাড়াই।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মোহাম্মদ সালাউদ্দিন জানান, ঈদের আগে ও পরে যানবাহন পারাপার করতে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৮টি ফেরি ও ২০টি লঞ্চ চলাচল করছে। ঈদের আগে ও পরে দুর্ভোগ ছাড়াই যাত্রী ও যানবাহন নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছে। আশা করছি বাকি দিনগুলোয়ও ভোগান্তি থাকবে না।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close