ইরফান, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

  ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২

শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কুবিতে কর্মশালা

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাস্যুরেন্স সেলের (আইকিউএসি) আয়োজনে ‘কোভিভ-১৯ মহামারি : করোনাকালীন শিক্ষার্থীদের মানসিক স্বাস্থ্য বিপর্যয় ও প্রতিকার’ বিষয়ক দিনব্যাপী কর্মশালা শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে দিনব্যাপী এ কর্মশালা চলবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ক্লাস রিপ্রেজেনটেটিভকে (সিআর) নিয়ে এ কর্মশালা শুরু হয়। আইকিএসির পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রশিদুল ইসলাম শেখের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন, বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. আসাদুজ্জামান। রিসোর্স পারসন হিসেবে আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক জোবেদা খাতুন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড এ এফ এম আবদুল মঈন বলেন, আজকের সেশনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই সেশনটি গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দিক দিয়ে। আমরা সব সময় শারীরিক স্বাস্থ্য নিয়ে কথা বলি কিন্তু মানসিক স্বাস্থ্য এড়িয়ে যাই। কিন্তু মানসিক শান্তি হচ্ছে কিছু কিছু সময় শারীরিক স্বাস্থ্যের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। শারীরিক স্বাস্থ্যের সঙ্গে মানসিক স্বাস্থ্য কানেক্টেড। শুধু কোভিড পরবর্তী সময় নয়, মানসিক স্বাস্থ্য সব সময়ের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ।

এটি সরকার, পসিলি মেকারদের কাছেই শুধু অবহেলিত নয় আমাদের ফ্যামিলি এবং সোসাইটিতেও অবহেলিত। তিনি আরো বলেন, আমরা খুবই দুঃখের সঙ্গে দেখি যে, সাইকোলজিক্যাল এবং মেন্টাল হেলথের জন্য আমাদের বাজেট খুবই সীমিত।

রিসোর্স পারসন জোবেদা খাতুন বলেন, আমরা দেখেছি করোনার কারণে শিক্ষার্থীরাই সবচেয়ে বেশি মানসিক বিপর্যয়ের মধ্যে পড়ে গেছে। এই বিপর্যয়ের মাত্রাটা এরকম যে, অনেকে পড়াশোনা করতে পারছে না, ঘুম হচ্ছে না, পরীক্ষায় বসতে পারছে না। আত্মহত্যা করার একটা প্রবণতা তাদের মধ্যে দেখা যাচ্ছে। যদিও আমাদের শিক্ষার্থীরা অনেক বেশি সহনশীল। কীভাবে আমরা মানসিকভাবে শক্তিশালী হতে পারি সেই বিষয়গুলো আমরা দিনভর শিখব।

আইকিউএসি পরিচালক অধ্যাপক ড. রশিদুল ইসলাম শেখ ছাত্র প্রতিনিধিদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা আজ যে জ্ঞান অর্জন করবেন, সেটা আপনার বিভাগে ফিরে গিয়ে সে জ্ঞানটি বিতরণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করবেন। কারণ বিশ্ববিদ্যালয়ের সীমাবদ্ধতা আছে। এই অডিটোরিয়ামটি যদি আরো বড় হতো তাহলে আমরা একসঙ্গে সবাইকে আনতে পারতাম। আজ আমরা যাদের ডাকতে পারিনি আগামীতে তাদের নিয়ে এ জাতীয় একটি প্রোগ্রাম করার চেষ্টা করব।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ছাত্র পরামর্শক ও নির্দেশনা কার্যালয়ের পরিচালক ড. মোহা. হাবিবুর রহমান, আইকিউএসির অতিরিক্ত পরিচালক ড. মো. গোলাম মোর্তাজা তালুকদার এবং বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও ছাত্র প্রতিনিধিরা। উল্লেখ্য, এ কর্মশালাটি গত ২৯ আগস্ট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। এতে বিশেষজ্ঞ বক্তা হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দিনকে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close