ক্রীড়া ডেস্ক

  ১৬ জুন, ২০২৪

মুকুট ফিরিয়ে আনতে চায় এমবাপ্পে

ফ্রান্সের জার্সিতে বিশ্বকাপ জিতেছেন, নেশনস লিগের শিরোপার স্বাদ পেয়েছেন, কিন্তু এখনো অধরা ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফি। এই শূন্যতাটুকু এবার খুব করে পূরণ করতে চাইছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। এবার এমবাপ্পে ফরাসি দলে স্রেফ খেলোয়াড় নন, অধিনায়কের মহাভারও তার কাঁধে। ২০০০ সালে সবশেষ ইউরোপ সেরা হওয়া ফরাসিদের মুকুট ফিরিয়ে দেওয়ার তাড়না অধিনায়ক এমবাপ্পে অনুভব করছেন আরো বেশি।

ইউরোর গত আসরে ফ্রান্স ছিল বিবর্ণ, এমবাপ্পে নিজেও ছিলেন ব্যর্থতার খোলসে বন্দি। শেষ ষোলোয় সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে টাইব্রেকারে হেরে বিদায় নিয়েছিল তারা। ওই টুর্নামেন্টে একবারও জালের দেখা না পাওয়া এমবাপ্পে সুইসদের বিপক্ষে টাইব্রেকারেও ব্যর্থ হয়েছিলেন লক্ষ্যভেদ করতে। অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে এবার গ্রুপ পর্বেও কঠিন বাধার মুখে পড়তে হবে ফ্রান্সকে। ‘ডি’ গ্রুপে দিদিয়ে দেশমের দলের তিন প্রতিপক্ষ পোল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস ও অস্ট্রিয়া। এমবাপ্পেও মানছেন, তাদের জন্য চলার পথটা মসৃণ নয়; তবে টিএনটি স্পোর্টসের সঙ্গে আলাপচারিতায় কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যে পৌঁছাতে আশাবাদ জানালেন ২৫ বছর বয়সি ফরোয়ার্ড। নিশ্চিতভাবেই অসাধারণ একটা অভিজ্ঞতা হতে যাচ্ছে। আমার দেশের ইতিহাস লেখার আরেকটি সুযোগ (আমাদের সামনে)। আমি প্রস্তুত। ‘অবশ্যই, এটা (লক্ষ্যে পৌঁছানো) কঠিন হবে। সবাই জানে, ইউরো জেতা কতটা কঠিন।

কেননা, আমরা দেখতে পাচ্ছি, সবগুলো দল খুবই শক্তিশালী। আমাদের গ্রুপটা ভীষণ কঠিন, কিন্তু আমরা এর জন্য প্রস্তুত।’

ফ্রান্সের হয়ে ২০১৮ বিশ্বকাপ জিতেছেন এমবাপ্পে; ২০২২ বিশ্বকাপে হয়েছেন রানার্সআপ। ২০২০-২১ মৌসুমের নেশন্স কাপও উঁচিয়ে ধরার অভিজ্ঞতা হয়েছে। কদিন আগে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেওয়া এই ফরোয়ার্ড এবার খুব করে চান অর্জনের ঝুলিতে ইউরোর ট্রফি দেখতে। সত্যি বলতে, আমি খুব করে ইউরো জিততে চাই। আমি বিশ্বকাপ জিতেছি, নেশনস লিগ জিতেছি, এই একটা ট্রফি যেটি জাতীয় দলের হয়ে এখনো পাইনি। আসলেই এটা জিততে চাই আমি। অধিনায়ক হিসেবে এটাই আমার প্রথম টুর্নামেন্ট। তাই এটা আমার জন্য আসলেই গুরুত্বপূর্ণ। এই টুর্নামেন্ট সব সময় আমার দেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এবং আমরা চাই দেশের মানুষ আমাদের নিয়ে গর্ব করুক।

কাতার বিশ্বকাপের ফাইনালে এমবাপে হ্যাটট্রিক উপহার দিলেও শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে আর্জেন্টিনার কাছে হেরে স্বপ্ন ভাঙে ফ্রান্সের। শিরোপার খুব কাছে গিয়ে হতাশ হওয়ার সেই তিক্ত স্মৃতি মনে রেখেছেন তিনি। তবে অতীত ভুলে ইউরোয় সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছাতে ধাপে ধাপে ভাবতে চান এমবাপ্পে। আমি মনে করি, (পুরোনো হতাশা ভুলে) আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। টানা দুই শিরোপা, অকল্পনীয় কিছু, ইতিহাস লেখার কাছাকাছি গিয়ে জিততে না পারা আমাদের কষ্ট দিয়েছিল। আমরা ছাড়া সবাই ম্যাচটা (বিশ্বকাপের ফাইনাল) উপভোগ করেছিল, কিন্তু এটা খেলারই অংশ। যখন আমি ওই ম্যাচের ভিডিও দেখি, তখন হাসি, কেননা, এটা ইতিহাসের অংশ। যদি আবারও ফাইনালে উঠি, আমরা জানি আমাদের কী করতে হবে। আমাদের ম্যাচ খেলতে হবে, কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখানো নয়। তবে ইউরোর ফাইনাল এখনো অনেক দূরের ব্যাপার, আমাদের মনোনিবেশ করতে হবে গ্রুপ পর্বে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close