ক্রীড়া ডেস্ক

  ২৪ নভেম্বর, ২০২২

ক্রোয়েশিয়াকে রুখে দিল মরক্কো

ক্রোয়েশিয়া ০-০ মরক্কো

রাশিয়ায় চার বছর আগে বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছিল ক্রোয়েশিয়া। সেবার ফ্রান্সের কাছে পরাজিত হয়ে শিরোপা বঞ্চিত হয় তারা। সে বিশ্বকাপের চার বছর পর কাতার বিশ্বকাপে এবার ক্রোয়েশিয়া থেকে র‌্যাংকিয়ে ১০ ধাপ পেছনে থাকা মরক্কো তাদের রুখে দিয়েছে।

গতকাল কাতারের আল বায়াত স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত গ্রুপে এবং দিনের প্রথম ম্যাচে গোল শূন্য ড্র করেছে দল দুটি। দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে নামা মরক্কোর বিপক্ষে ক্রোয়েশিয়া ফেভারিট হিসেবে মাঠে নামলেও নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেনি।

দুই দলই একে অপরের ওপর চড়াও হলেও কোনো পক্ষই আক্রমণের সফল সমাপ্তি টানতে পারেনি। ম্যাচের ২০তম মিনিটে আক্রমণে যাওয়া মরক্কোর ডিফেন্ডার আশরাফ হাকিমিকে ক্রোয়েশীয় ডিফেন্ডাররা ফাউল করলে ফ্রি কিক পায় তারা। ডি বক্সের বাইরে থেকে ফ্রি কিক কাজে লাগাতে পারেনি আফ্রিকান দলটি।

পরের মিনিটে লুকা মডরিচের নেতৃত্বে আক্রমণে যায় ক্রোয়েশিয়া। তবে কর্নারের বিনিময়ে সেটি প্রতিহত করে মরক্কোর রক্ষণভাগ। এভাবে আক্রমণ ও পাল্টা আক্রমণে ম্যাচটি এগিয়ে গেলেও সেটি সীমাবদ্ধ ছিল মধ্যমাঠে। গোল করার মতো একটি আক্রমণও করতে পারেনি প্রতিদ্বন্দ্বী দল দুটি। ৪৫ মিনিটে ইভান পেরিসিচের দুর্দান্ত এক আক্রমণ দক্ষতার সঙ্গে রুখে দেন মরক্কোর গোল রক্ষক ইয়াসিন বুনু। ডি বক্সের বাঁ দিকে চলন্ত বলে পেরিসিচ শট নিলে ঝাঁপিয়ে পড়ে সেটি গোল লাইন থেকে গ্রিপে পুরে নেন গোলরক্ষক। ফলে গোলশূন্য সমতা নিয়ে বিরতিতে যায় প্রতিদ্বন্দ্বী দল দুটি।

বিরতির পরও ম্যাচের চেহারা ছিল একই রকম। তবে বল দখলের দিক থেকে বর্তমান রানারআপদের চেয়ে এগিয়ে ছিল মরক্কানরা। যদিও প্রথমার্ধের মতো মধ্যমাঠের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল প্রতিদ্বন্দ্বিতা। ৬৩ মিনিটে মরক্কোর সেলিম আমাল্লাহকে ফাউল করেন লুকা মড্রিচ। ফলে ডি বক্সের বাইরে ফ্রি কিক থেকে জোরালো শট নেন হাকিমি। তার অসাধারণ শটের বল পোস্টে প্রবেশের সময় ফিস্ট করেন ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক ডোমিনিক লিভাকোভিচ।

৭০ মিনিটে ক্রোয়েশিয়ার আক্রমণ কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করে মরক্কোর রক্ষণ। ৭৯তম মিনিটে ক্রোয়েশিয়া পেয়েছিল পাল্টা ফ্রি কিক। ফ্রি কিকের ক্রসে মরক্কান গোল পোস্টেও সামনেই হেড করেছিলেন ক্রোয়েশিয়ার ডিফেন্ডার জোসকো গাভারডিওল। তবে সেটি অল্পের জন্য সাইডবারঘেঁষে বাইরে চলে যায়। ছয় মিনিটের ইনজুরি টাইমেও কোনো পক্ষ উল্লেখ করার মতো সুযোগ সৃষ্টি করতে পারেনি। ফলে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় দুই দলকে।

উল্লেখ্য, ২০০০ সালের পর এর আগে পাঁচবারের প্রচেষ্টায় চারবারই বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলতে ব্যর্থ হয়েছে মরক্কো। চার বছর আগে রাশিয়া বিশ্বকাপে একমাত্র মূল পর্বে খেলার অভিজ্ঞতা হয়েছিল দলটির। ওই আসরে গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচ থেকে এক পয়েন্ট অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিল দলটি ।

পর্তুগালের কাছে ১-০ গোলে পরাজিত হওয়ার পর স্পেনের বিপক্ষে পুরো ৯০ মিনিট পর্যন্ত ২-১ গোলে এগিয়ে থেকেও ইনজুরি টাইমে গোল হজম করে ইতিহাসের অন্যতম বড় অঘটনের সাক্ষী হতে পারেনি তারা। ২-২ গোলে ড্রয়ের সুবাদে এক পয়েন্ট পেয়েছিল মরক্কো।

এবার তারা পাঁচ ম্যাচে অপরাজিত থেকে আত্মবিশ্বাস নিয়েই বিশ্বকাপ খেলতে এসেছিল। প্রস্তুতি ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা, চিলি ও জর্জিয়ার বিপক্ষে জয়ী হওয়ার পর সেপ্টেম্বরে প্যারাগুয়ের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে তারা।

এদিকে চার বছর আগে ফাইনালে ফ্রান্সের কাছে ৪-২ গোলে পরাজিত হওয়ার হতাশা শেষ পর্যন্ত কাটিয়ে উঠতে পারল না ক্রোয়েশিয়া। ঐ ম্যাচের পর আজ বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলতে মাঠে নেমে পয়েন্ট ভাগাভাগি করল ক্রোয়েটরা।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close