ক্রীড়া প্রতিবেদক

  ২২ মে, ২০২২

টাইগারদের চিন্তা বোলিং নিয়ে

চট্টগ্রাম টেস্টের ড্র নিয়ে খুশি দুই দলই। তবে তৃপ্তির পিঠে একরাশ চিন্তাও যোগ হয়েছে বাংলাদেশ দলের। তীব্র গরমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে খেলতে হয়েছে খেলোয়াড়দের। ধকলটা বেশি গেছে স্বাগতিকদের ওপর দিয়ে। শ্রীলঙ্কার দুই ইনিংস পুরোপুরি শেষ না হলেও ২২৫.১ ওভার বোলিং করেছে বাংলাদেশ। চামড়া পোড়ানো রোদের নিচে স্বাভাবিকভাবে মাঠে বেশি থাকতে হয়েছে খেলোয়াড়দের।

সেটারই প্রভাব পড়েছে খেলোয়াড়দের শরীরে। ছোটখাটো চোট সমস্যায় কেউ কেউ, যার সর্বশেষ সংযোজন নাঈম হাসান। নিজের বোলিংয়ে ফিল্ডিং করতে গিয়ে ডান হাতের মধ্যমায় চোট পান এ অফ স্পিনার। চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিন ব্যথা পান নাঈম। ভাঙা আঙুল নিয়েই পঞ্চম দিন বোলিং করেন তিনি। ফলে খেলা হচ্ছে না ঢাকা টেস্ট।

নাঈমের আগে ঢাকা টেস্ট থেকে ছিটকে যান বাঁহাতি পেসার শরীফুল ইসলামও। তিনিও চোটে পড়েন একই দিনে। ব্যাটিংয়ের সময় ডান হাতে চোট পান শরীফুল। দুই গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়ের চোট স্বাভাবিকভাবে ঢাকা টেস্টের পরিকল্পনায় ব্যাঘাত ঘটতে যাচ্ছে।

শরীফুল একাদশে না থাকলেও ইবাদত হোসেনকে দিয়ে ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে চাইবে বাংলাদেশ। কিন্তু স্পিনের দিকে হাত বাড়িয়ে দেওয়া মিরপুরের উইকেটে নাঈমের না থাকা বড় মাথাব্যথার কারণ হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের। গত পাঁচ বছরে মিরপুরে সেরা পাঁচ উইকেট-শিকারি বোলারই স্পিনার। প্রথম চারজন বাংলাদেশের, পঞ্চম স্থানে পাকিস্তানের সাজিদ খান। সাকিব আল হাসান আর তাইজুল ইসলাম ছাড়া ঢাকা টেস্টে বাকি সেরা চারের দুজনকে পাচ্ছে না বাংলাদেশ। চোটের কারণে ১৫ মাসের বিরতি দিয়ে টেস্টে ফিরেছিলেন নাঈম। চট্টগ্রাম টেস্টে দলের সেরা বোলারও তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে উইকেটশূন্য থাকলেও প্রথম ইনিংসে ক্যারিয়ার-সেরা বোলিংয়ে শ্রীলঙ্কার ৬ উইকেট নেন নাঈম। ঢাকা টেস্টে তার অভাব ভোগাবে টাইগারদের।

বিকেএসপির ক্রিকেট উপদেষ্টা নাজমুল আবেদীন ফাহিমও এমনটাই মনে করেন। নাঈমের অনুপস্থিতি ঢাকা টেস্টের পরিকল্পনায় ব্যাহত হতে পারে বলে মনে করেন তিনি, ‘নাঈমের অনুপস্থিতি আমাদের অবশ্যই ভোগাবে। পেস বোলিং নিয়ে হয়তো সমস্যা হবে না। কিন্তু স্পিনের ক্ষেত্রে সাকিব-তাইজুল আর নাঈমের সমন্বয়টা ভেঙে গেল।’ আরেক অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলতে গিয়ে আগেই ছিটকে গিয়েছিলেন। তার জায়গায় দলে ঢোকেন নাঈম।

বোলিং বিভাগ নিয়ে চিন্তিত বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও। পরশু শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের শিরোপা জয়ের উৎসবে সাংবাদিকদের তিনি বলেছেন, ‘দ্বিতীয় টেস্টে আরো দুজনকে মিস করতে যাচ্ছি। একজন হচ্ছে শরীফুল, আরেকজন নাঈম। বোলিং বিভাগে অবশ্যই আমরা পিছিয়ে। অবশ্য ঠিক পিছিয়ে যায়নি, তবে মূল একাদশে যাদের খেলার কথা তারা খেলতে পারছে না। এটা আমাদের জন্য একটা ধাক্কা।’

নাঈমের ছিটকে পড়াটা বড় ধাক্কা হিসেবে মনে করেন বিসিবির নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমনও। তিনি বলেন, ‘কঠিন তো হলো অবশ্যই। সে দারুণ ছন্দে ছিল। ওকে মিস করবে দল। ভালো করছিল। চোটটা পেয়েছে একেবারে শেষ দিকে। একটু উদ্বিগ্ন হওয়ার মতো বিষয়।’ চোট সমস্যা তো আছেই, প্রথম আর দ্বিতীয় টেস্টের মাঝে বেশি বিরতি না থাকায় প্রচণ্ড গরমের ধকল কাটিয়ে ওঠার সময়ও পাচ্ছে না বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কা-বাংলাদেশ দুই দলই তাই কালকের অনুশীলন সূচি বাতিল করেছে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close