ক্রীড়া প্রতিবেদক

  ২৭ নভেম্বর, ২০২১

শিষ্যদের ব্যাটিংয়ে খুশি প্রিন্স

মধ্যাহ্ন বিরতির আগেই ৪ উইকেট হারিয়ে বিপাকে বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপেক্ষ প্রথম টেস্টের গতকাল প্রথম দিনটা বাংলাদেশ পার করতে পারবে কিনা সেটা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছিল। এই প্রশ্নে উত্তটা সহজ করে দিয়েছে মুশফিকুর রহিম আর লিটন দাসের বিশ্বস্ত ব্যাটিং। বাকি দুটি সেশন দেখা ছাড়া আর কোনো কাজই করতে হয়নি ড্রেসিংরুমে থাকা ব্যাটারদের। এমন ব্যাটিংয়ে দলের ব্যাটিং কোচ অ্যাশওয়েল প্রিন্সও মুগ্ধ হয়েছেন। পাকিস্তানের বন্দনাও পেয়েছেন তারা।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে প্রিন্স জানিয়েছেন, মুশফিক-লিটন দুজনই ধৈর্যের পরীক্ষা দিয়েছেন বেশ ভালোভাবেই। প্রিন্স বলেছেন, ‘ছেলেরা দারুণ দৃঢ়তা দেখিয়েছে। মুশফিক শুরুতে অনেক ধৈর্য দেখিয়েছে। সে অভিজ্ঞ একজন খেলোয়াড়। অনেক কম অভিজ্ঞ বা তরুণ খেলোয়াড় এ পরিস্থিতিতে ঘাবড়ে যেত। অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছে। শান্ত থেকে লিটন দারুণ করেছে। ক্র্যাম্পের পর লিটন চাচ্ছিল দিনের খেলা শেষ হওয়া পর্যন্ত যেন উইকেটে থাকতে পারে। বরফ লাগানো হচ্ছে। আজ রাতে শুশ্রূষা করা হবে। আশা করছি কাল আবারও ওরা ব্যাট করতে নামবে।’

টেস্ট ক্রিকেটর প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন লিটন দাস। তবে খেলার সময় মাঝে কখনো পিঠে, কখনো হাত, কখনো হাঁটুতে ‘ক্র্যাম্প’ হয়েছে লিটনের। এটা একটু চিন্তায় ফেলেছে টিম ম্যানেজমেন্টকে। তবে ব্যাটিং কোচ কিন্তু আশাবাদী, ‘সবাই অনেক খুশি ছিল। বিশ্বকাপে ব্যর্থতার সময় আমি তাকে কিছু বলিনি। এখানে আগেভাগে এসে টেস্টের জন্য তৈরি হয়েছে। দু-একটি টেকনিক্যাল জিনিস নিয়ে কাজ করেছে। ক্রিজে দারুণ ভারসাম্য দেখিয়েছে। এত স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যাট করেছে, এটা দেখা অনেক উপভোগ্য ছিল। দিনশেষে ক্র্যাম্পটা দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াল।’

সংবাদ সম্মেলনে লিটনের টি-টোয়েন্টি ব্যাটিং ব্যর্থতা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচ মেজাজ হারিয়ে ফেলেন। তিনি বলেন, ‘আমি বুঝতে পারি না কেন টি-টোয়েন্টি এবং টেস্টের মাঝে এত তুলনা করা হচ্ছে। এখানে কোনো তুলনাই চলে না। টেস্টে ব্যাটিংয়ের সময় পাওয়া যায়। টি-টোয়েন্টির ব্যাটিং মানসিকতা পুরোপুরি ভিন্ন। বিশ্বকাপ নিয়ে কথা বলতে চাই না। এটা ভিন্ন ঘরানার ক্রিকেট। তার আজকের ব্যাটিং দেখে যে কেউ দ্বিধাহীনভাবে স্বীকার করবে সে একজন ক্লাস ব্যাটসম্যান। আজ সে সেটাই দেখিয়েছে। সর্বশেষ টেস্টে ৯৫ রান করেছিল। কাল লিটন ও মুশফিক আরও বড় পার্টনারশিপ করবে বলে আশা করছি।’

মুশফিক-লিটনের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করেছে প্রতিপক্ষ পাকিস্তানও। পেসার হাসান আলী বলেছেন, ‘তারা দুজন আমাদের হাত থেকে ম্যাচটা নিয়ে গেছে। আমার মতে, দুজনই দারুণ ইনিংস খেলেছে। প্রথম সেশনের পর বল ব্যাটে আসা শুরু হয়।’

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close