ক্রীড়া ডেস্ক

  ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

মেসির হ্যাটট্রিকে আর্জেন্টিনার জয়

আরো একবার অসাধারণ নৈপুণ্য দেখালেন অধিনায়ক লিওনেল মেসি। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে করলেন দুর্দান্ত হ্যাটট্রিক। ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি পেলেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার পাশাপাশি আর্জেন্টিনাকে বড় জয় উপহার দিলেন তিনি।

গতকাল বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে ঘরের মাঠ স্তাদিও মনুমেন্তালে বলিভিয়াকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে স্বাগতিকরা। প্রথমার্ধে দলকে এগিয়ে দেওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে আরো দুবার লক্ষ্যভেদ করেন পিএসজি ফরোয়ার্ড মেসি।

হ্যাটট্রিকের পথে ৩৪ বছর বয়সি মেসি গড়েছেন অনবদ্য এক রেকর্ড। পেলেকে টপকে দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে গেছেন তিনি। ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী মেসির নামের পাশে রয়েছে ৭৯ গোল। ব্রাজিলের সাবেক তারকা পেলে গোল করেছিলেন ৭৭টি।

গত জুলাইয়ে কোপা আমেরিকার শিরোপা জেতার পর প্রথমবারের মতো নিজেদের মাটিতে দর্শকের সামনে খেলতে নেমেছিল আর্জেন্টিনা। উৎসবমুখর পরিবেশে গ্যালারিতে থাকা ভক্ত-সমর্থকদের সামনে তারা দেখায় দাপুটে পারফরম্যান্স।

পুরো ম্যাচে বলিভিয়াকে কোণঠাসা করে রাখে লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা। ৭১ শতাংশ সময়ে তাদের পায়ে ছিল বল। গোলমুখে মোট ২৪টি শট নিয়ে তারা লক্ষ্যে রাখে সাতটি। অন্যদিকে, সফরকারীদের সাত শটের তিনটি ছিল লক্ষ্যে।

শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক মেজাজে ছিল আর্জেন্টিনা। ১৪তম মিনিটে সফলতাও পেয়ে যায় তারা। ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের চোখ ধাঁধানো শটে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন মেসি। বলিভিয়ার গোলরক্ষক কার্লোস লাম্পে কোনো সুযোগই পাননি বল আটকানোর।

সাত মিনিট পর আনহেল দি মারিয়ার প্রচেষ্টা সহজেই প্রতিহত করেন লাম্পে। ২৭তম মিনিটে তার পাসে জালে বল পাঠিয়েছিলেন লাউতারো মার্তিনেজ। কিন্তু তিনি অফসাইডে থাকায় বাতিল হয় গোলটি।

৪৩তম মিনিটে দি মারিয়ার পাসে ডি-বক্সের ভেতর থেকে মেসির কোনাকুনি শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে ব্যবধান বাড়েনি আর্জেন্টিনার। দুই মিনিট পর অবশ্য বিপদে পড়তে পারত তারা। রদ্রিগো দে পলের ব্যাকপাস থেকে বল পেয়েছিলেন হেনরি ভাকা। কিন্তু উড়িয়ে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন তিনি।

বিরতির পরও একই ঢংয়ে খেলতে থাকে আলবিসেলেস্তেরা। ৪৯তম মিনিটে লেয়ান্দ্রো পারেদেসের দূরপাল্লার শট ফিরিয়ে দেন লাম্পে। ৬১তম মিনিটে বলিভিয়ার রক্ষণভাগকে নাচিয়ে একাই আক্রমণে উঠে মেসি যে শট নেন, তা চলে যায় পোস্ট ঘেঁষে।

তিন মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করে আর্জেন্টিনাকে চালকের আসনে বসিয়ে দেন মেসি। মার্তিনেজের সঙ্গে বল আদান-প্রদান করে ডি-বক্সে ঢুকে নিশানা ভেদ করেন তিনি। তার বাঁ পায়ের প্রথম শট প্রতিপক্ষের এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে ফেরার পর ডান পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি।

পেলেকে পেছনে ফেলার পর ৮৮তম মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন মেসি। হোয়াকিন কোরেয়ার জোরালো শট গোলরক্ষক ফিরিয়ে দিলেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হন। খুব কাছ থেকে আলগা বল সহজেই জালে পাঠান মেসি।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের পয়েন্ট তালিকায় দুবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা রয়েছে দুইয়ে। আট ম্যাচে তাদের অর্জন ১৮ পয়েন্ট। সমান ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল।

মহামারি করোনাভাইরাস বিশ্বের যে কয়েকটি দেশে সবচেয়ে বেশি আঘাত হেনেছে, তার মধ্যে আর্জেন্টিনা অন্যতম। দেশটিতে মৃত্যু সংখ্যাই ১ লাখ ১৩ হাজারের বেশি। লম্বা সময় লকডাউনসহ জরুরি অবস্থা জারি ছিল দেশটিতে। তবে অবশেষে সে ধাক্কা অনেকটাই সামলে নিয়েছে তারা। এমনকি গতকাল উন্মুক্ত স্টেডিয়ামে দর্শকের উপস্থিতিতে ফুটবল ম্যাচও অনুষ্ঠিত হয়েছে। তাতে আবেগে চোখের জল আটকে রাখতে পারেননি সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি।

যদিও এখনো সম্পূর্ণ উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়নি স্টেডিয়াম। তবু গতকাল স্তাদিও মনুমেন্তালে এদিন ২১ হাজার দর্শক উপস্থিত ছিল। তাদের সামনেই বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে বলিভিয়াকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে আর্জেন্টিনা। ম্যাচের তিনটি গোলই করে নিজের হ্যাটট্রিক পূরণ করেছেন মেসি। কিংবদন্তি পেলেকে ছাড়িয়ে লাতিন আমেরিকার সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার রেকর্ড গড়েছেন। কিন্তু এসব কিছুর চেয়ে নিজের দেশকে সুস্থ দেখে বেশি আনন্দিত হয়েছেন মেসি। ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় আবেগ ধরে রাখতে পারেননি মেসি।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close