নিজস্ব প্রতিবেদক

  ১১ জুলাই, ২০২৪

আদালতের আদেশ মেনে ক্লাসে ফেরার আহ্বান কাদেরের

প্রধান বিচারপতির নির্দেশনা ও আদালতের আদেশ মেনে কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীদের রাজপথ ছেড়ে ক্লাসে ফেরার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল বুধবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, মানুষের দুর্ভোগ সৃষ্টি হতে পারে, এমন কর্মসূচি বন্ধ করে আদালতের নির্দেশ মেনে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানাই। তিনি বলেন, আদালত কোটা সংস্কার নিয়ে চার সপ্তাহের স্থগিতাদেশ দিয়েছেন। শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান করেছেন। পাশাপাশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিতের নির্দেশনা দিয়েছেন। সরকার কোটা মুক্ত করার সিদ্ধান্ত আগেই নিয়েছে বলে জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, এখন সরকারের অবস্থান হচ্ছে, আদালতের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।

এদিনই হাইকোর্টের আদেশে এক মাসের স্থিতাবস্থা দিয়েছেন আপিল বিভাগ; এই সময়ে সরকারি চাকরিতে কোটা থাকবে না। কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীদেরও ক্লাসে ফিরতে বলেছেন প্রধান বিচারপতি।

কিন্তু এসবের কিছুই মানতে নারাজ শিক্ষার্থীরা। ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে তারা আগের মতোই অবরোধ-কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন। কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীরা এখন নতুন দাবি তুলেছেন যে, আদালত নয়, সরকারের নির্বাহী বিভাগ থেকে সুস্পষ্ট ঘোষণা আসতে হবে।

হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের ওপর এক মাসের স্থিতাবস্থা দেওয়ায় কোটা বাতিল করে ২০১৮ সালে সরকারের জারি করা পরিপত্র অনুযায়ী এই সময়ে নিয়োগ চলবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

কিন্তু আপিল বিভাগের আদেশে ক্লাসে ফেরার কোনো লক্ষণ নেই আন্দোলনকারীদের। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, এদিন সকাল থেকেই অবরোধে নেমেছেন তারা। বাংলা ব্লকেড নাম দেওয়া আন্দোলনে সড়ক অবরোধ করে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

দুপুরে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ অন্তত ২০টি পয়েন্ট অবরোধ করে রেখেছেন তারা। এতে প্রায় স্থবির হয়ে পড়েছে মহানগরীর পরিবহনব্যবস্থা। তীব্র ভোগান্তিতে পড়েছেন অসংখ্য মানুষ। হাসপাতালে যাতায়াতেও সমস্যা হচ্ছে।

আপিল বিভাগের আদেশ আসার পর সংবাদ সম্মেলনে কোটাবিরোধী আন্দোলনের সমন্বয়ক সারজিস আলম বলেছেন, দাবি আদায়ে আন্দোলন আরো তীব্রতর হবে। তার দাবি, কোটা সংস্কারের দাবি সরকারের নির্বাহী বিভাগের কাছে, আদালতের কাছে নয়।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close