প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ০৬ জুলাই, ২০২৪

টিউলিপসহ চার বঙ্গ নারীর ব্রিটেন জয়

যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনে এবারও এমপি নির্বাচিত হয়েছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি টিউলিপ সিদ্দিক। এবার ভোটে বিপুল বিজয়ী দল লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে হ্যাম্পস্টেড-হাইগেট আসন থেকে জয়লাভ করেছেন টিউলিপ। এ নিয়ে টানা চতুর্থবার জয় পেলেন বঙ্গবন্ধুর নাতনি। তিনি ছাড়া আরো তিন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নারী এ নির্বাচনে জয়লাভ করেছেন। টিউলিপ সিদ্দিক ছাড়া অন্য তিনজন হলেন- রুশনারা আলী, রূপা হক ও আফসানা বেগম। চারজনকেই এবার দেখা যেতে পারে ব্রিটেনের মন্ত্রিসভায়। খবর বিবিসির।

টিউলিপ : ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ভোটের ফল অনুযায়ী, টিউলিপ সিদ্দিক ২৩ হাজার ৪৩২ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন, ভোটের হারে তা ৪৮.৩ শতাংশ। টিউলিপের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ প্রার্থী ডন উইলিয়ামস পেয়েছেন ৮ হাজার ৪৬২ ভোট (১৭.৪ শতাংশ)। টিউলিপ ২০১৫ সালে হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্ন আসন থেকে প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হন। এরপর ২০১৭ সালে ও ২০১৯ সালের নির্বাচনেও একই আসন থেকে জয়লাভ করেন তিনি। গত দুই মেয়াদে বিরোধী দল লেবার পার্টির এমপি হিসেবে ছায়ামন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন টিউলিপ। এবার দল ক্ষমতায় যাওয়ায় পেতে পারেন কোনো মন্ত্রীর পদ। রাজনৈতিক জীবনের শুরুতে হ্যাম্পস্টেড-কিলবার্নের কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন টিউলিপ। তিনি ১৯৮২ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন। তার মা শেখ রেহানা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন। টিউলিপ ১৫ বছর বয়স থেকে হ্যাম্পস্টেড-কিলবার্নে বসবাস করছেন। তার স্কুলজীবন এ এলাকায় কাটলেও লন্ডনের কিংস কলেজ থেকে পলিটিক্স, পলিসি ও গভর্নমেন্ট বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

রুশনারা আলী : লেবার পার্টি থেকে ১৫ হাজার ৮৯৬ ভোট পেয়ে টানা পঞ্চমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুশনারা আলী। টাওয়ার হ্যামলেটসের বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসন থেকে জিতেছেন তিনি। তার নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী আজমল মাশরুর পেয়েছেন ১৪ হাজার ২০৭ ভোট। ২০১০ থেকে আন্তর্জাতিক উন্নয়নবিষয়ক ছায়ামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। পরে ২০১৩ সালের অক্টোবরে ছায়াশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী নিযুক্ত হন রুশনারা আলী। যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টের প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপি রুশনারা আলী। বাংলাদেশের সিলেটে জন্ম রুশনারা আলীর। ৭ বছর বয়সে পরিবারের সঙ্গে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান তিনি। তিনি অক্সফোর্ডের সেন্ট জনস কলেজ থেকে দর্শন, রাজনীতি ও অর্থনীতিতে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন।

রূপা হক : ড. রূপা হক চতুর্থবারের মতো বিজয়ী হয়েছেন। এবারের নির্বাচনে পশ্চিম লন্ডনের ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনে পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন রূপা হক। তিন গণনাকৃত ভোটের ৪৬.৮ শতাংশ পেয়েছেন। লেবার পার্টির মনোনয়নে ২০১৫ সালে প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হন রূপা হক। এবারও লেবার পার্টির টিকিটেই জয়লাভ করেছেন। ২০১৬ সালের অক্টোবরে লেবার পার্টির ছায়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পান রূপা হক। তাকে সর্বদলীয় সংসদীয় মিউজিক গ্রুপের ভাইস চেয়ার এবং ক্রসরেলের সর্বদলীয় সংসদীয় পদে নিযুক্ত করা হয়েছিল।

আফসানা বেগম : পূর্ব লন্ডনের পপলার অ্যান্ড লাইমহাউস আসন থেকে লেবার পার্টির মনোনয়নে এবারের নির্বাচনে জয়লাভ করেছেন আফসানা বেগম। আফসানা বেগম দ্বিতীয় মেয়াদে বিজয়ী হয়েছেন। লেবার পার্টির আফসানা বেগম ১৮ হাজার ৫৩৫ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রিন পার্টির নাথালি সিলভিয়া বিনফাইট পেয়েছেন ৫ হাজার ৯৭৫ ভোট। আফসানার প্রতিদ্বন্দ্বী অন্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে কনজারভেটিভ পার্টির ফ্রেডি ডউনিং ৪ হাজার ৭৩৮টি, স্বতন্ত্র প্রার্থী আফসানার সাবেক স্বামী এহতেশামুল হক ৪ হাজার ৫৫৪টি ভোট পেয়েছেন। জয়ের পর প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে তিনি বলেন, ‘পুনর্নির্বাচিত হতে পেরে আমি আনন্দিত।’

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close