নিজস্ব প্রতিবেদক

  ২৫ জুন, ২০২৪

দুদকে এলেন না বেনজীরের স্ত্রী-সন্তানও

দ্বিতীয় দফা সময় পাওয়ার পরও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগের বিষয়ে বক্তব্য দিতে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) হাজির হননি পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদের স্ত্রী জীশান মির্জা ও তাদের দুই মেয়ে।

দুদকের এক কর্মকর্তা জানান, গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় তাদের সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ে হাজির হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তারা আসেননি। এর আগে বেনজীর আহমেদও গত রবিবার দুদকে হাজির হননি।

এ বিষয়ে দুদক সচিব খোরশেদা ইয়াসমীন সাংবাদিকদের জানান, বেনজীর আহমেদের স্ত্রী ও মেয়েরা হাজির হননি। তারিখ বাড়ানোর জন্যও কোনো আবেদন দেননি তারা। তবে লিখিত একটি বক্তব্য দিয়েছেন। যেখানে তাদের অবস্থান বর্ণনা করা হয়েছে। এই আবেদন বেনজীর আহমেদের আবেদনের সঙ্গেই দুদক কার্যালয়ে গত বৃহস্পতিবার জমা দেওয়া হয়েছে। এখন দুদক প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করবে।

খোরশেদা ইয়াসমিন বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে দুদকের তদন্তকারী দল প্রতিবেদন দেবে। সে প্রতিবেদন পাওয়ার পর কমিশন পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে। অন্যদের ক্ষেত্রে যে আইনি প্রক্রিয়া চলে, এখানেও তাই হবে।

দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম বলেন, পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ হচ্ছে সাবেক আইজিপি বেনজীরের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা। দুদক সেই সিদ্ধান্ত নেবে। বেনজীর ও তার পরিবারের সদস্যদের জ্ঞাত আয়বহির্ভূত বিপুল সম্পত্তি অর্জনের বিষয়ে তদন্ত সক্রিয়ভাবে এগিয়ে চলেছে।

বেনজীর আহমেদ ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আইজিপি এবং ২০১৫ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২০ সালের পর্যন্ত র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি দীর্ঘদিন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনারের দায়িত্বও পালন করেন।

গত ৩১ মার্চ প্রথম বেনজিরের সম্পদ নিয়ে একটি পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশ পায়। বেনজীরের ঘরে আলাদিনের চেরাগ; শিরোনামের ওই প্রতিবেদনে পত্রিকাটি বেনজীরের অর্জিত কিছু সম্পত্তির তথ্য প্রকাশ করা হয়। ওই প্রতিবেদনে বেনজীর ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ উঠে আসে। অভিযোগ যাচাই-বাছাই শেষে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। এরপর তদন্ত শেষে এ বিষয়ে ঢাকার একটি আদালতে আবেদন করে দুদক। তারপর ২৩ মে আদালতের বেনজীরের ৮৩টি দলিলের সম্পত্তি ও ৩৩টি ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ দেয় আদালত। ২৬ মে আদালত বেনজীর ও তার পরিবারের সদস্যদের নামের ১১৯টি জমির দলিল, ২৩টি কোম্পানির শেয়ার ও গুলশানে ৪টি ফ্লাট জব্দের আদেশ দেন।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close