সুমন ইসলাম, মুন্সীগঞ্জ

  ২৯ জুন, ২০২২

পদ্মা সেতুতে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক

পিকআপ ভ্যানে পার হচ্ছে মোটরসাইকেল

উদ্বোধনের তৃতীয় দিনে গতকাল মঙ্গলবার পদ্মা সেতুতে যানবাহন চলাচল ছিল স্বাভাবিক, গতিও ছিল স্বাভাবিক। তবে নিষিদ্ধ থাকায় মোটরসাইকেল নিতে হয়েছে পিকআপ ভ্যানে। এজন্য টোল আদায়ের পরিমাণও কমে গেছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যানবাহনের সংখ্যা বাড়লেও টোল প্লাজায় যানজট অথবা কোনো যানবাহনকে অপেক্ষায় থাকতে দেখা যায়নি। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রতিনিয়তই মাইকিং করছে ও সেতুতে টহল দিচ্ছে। গতকাল সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে এমন দৃশ্যই দেখা গেছে।

মাওয়া প্রান্তের টোল প্লাজা থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে বসানো হয় চেকপোস্ট। সেখান থেকেই ভাড়া করা পিকআপ ভ্যানে তোলা হয় মোটরসাইকেল। এভাবে পদ্মা সেতু পাড়ি দিতে প্রতি মোটরসাইকেল চালকদের গুনতে হচ্ছে এক থেকে দুই হাজার টাকা করে। ফলে স্বাভাবিকভাবে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তের টোল প্লাজা ছিল অনেকটাই ফাঁকা।

এদিকে পদ্মা সেতুর মাওয়া টোল প্লাজায় দায়িত্বরত বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী তোফাজ্জল হোসেন বলেন, পিকআপ ভ্যানে করে পদ্মা সেতু দিয়ে মোটরসাইকেল পারাপার হচ্ছে। পিকআপ ভ্যানে মোটরসাইকেল কাপড় বা কোনো কিছু দিয়ে ঢেকে পার করা হলে সেটি পণ্যবাহী গাড়ি হিসেবে ধরা হবে। সে ক্ষেত্রে টোল পরিশোধ করে সেতু পার হওয়া যাবে। তিনি আরো বলেন, বাস, ট্রাক, প্রাইভেট কারসহ অন্যান্য ভারী যানবাহন যথারীতি পারাপার হচ্ছে। বর্তমানে গাড়ির কোনো চাপ নেই বা যানজট নেই মাওয়া প্রান্তে।

অন্য দিকে যান চলাচল চালুর তৃতীয় দিনে সেতুতে চাপ অনেকাংশে কম ছিল। এদিন ব্যক্তিগত পণ্যবাহী ও গণপরিবহনসহ অন্যান্য গাড়ি স্বাচ্ছন্দ্যেই নির্ধারিত টোল দিয়ে সেতু পার হতে পারেছে। শৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করছে সেনাবাহিনী ও পুলিশ। মাওয়া প্রান্তে টোল প্লাজা ও অভিমুখে পদ্মা সেতু উত্তর থানার মোড় থেকে মোটরসাইকেল আরোহীদের সতর্ক করে বিকল্প পথ ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তারপরও অনেকে মোটরসাইকেল টোল প্লাজায় দফায় দফায় আসতে থাকে। সেতুতে ছবি তোলা থামলেও গাড়ি থেকে নামলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে টোল প্লাজায় মাইকিং ও টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনী।

অন্য দিকে মোটরসাইকেল চালকরা অভিযোগ করে বলেন, পিকআপ ভ্যানে মোটরসাইকেল সংশ্লিষ্ট কাউকে সঙ্গে যেতে দিচ্ছে না। এতে চুরির ভয় থাকছে। আমরা ভোগান্তিতে পড়েছি।

লৌহজং উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইলিয়াস হোসেন জানান, গতকাল সকাল থেকে সেতুতে ঠিকমতো যানবাহন পারাপার হচ্ছে। মূলত মোটরসাইকেলের কারণেই সেতুতে যানজট ও বিশৃঙ্খলা হচ্ছে। মোটরসাইকেল চলাচল এখন নেই। সে জন্য সুশৃঙ্খলভাবে গাড়ি চলাচল করছে। পুলিশের টিম সার্বক্ষণিক টহলে রয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনোও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়নি।

এদিকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, বাংলাদেশ ব্রিজ অথরিটি (বিবিএ) ও পুলিশ প্রশাসনের সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে পদ্মা সেতুর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার কথা জানিয়েছেন পদ্মা সেতু ইঞ্জিনিয়ারিং সাপোর্ট ও সেফটি টিমের সমন্বয়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. রবিউল আলম। তিনি জানান, জনগণ সরকারি নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও হেঁটে সেতুর ওপর ওঠার চেষ্টা করছে এবং সেতুর ওপর থেকে যানবাহনেও উঠছে। অনেকে যানবাহন থেকে নেমে সেতুর সৌন্দর্য অবলোকন ও ছবি-ভিডিও ধারণ করছে। এতে সেতুর ওপর তীব্র যানজটসহ দুর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়ছে। শুধু তাই নয়, সেতুর ওপর রক্ষিত গুরুত্বপূর্ণ মালামাল ও যন্ত্রপাতি ক্ষতি সাধন হচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা সবাইকে জানাতে চাই, পদ্মা সেতু আমাদের দেশের সম্পদ। এ সেতুর ওপর যানবাহন থামানো ও যানবাহন থেকে নামা বন্ধ করতে হবে।

সংশ্লিষ্ট সৃত্রে জানা গেছে, গত রবিবার সকালে যান চলাচলের জন্য পদ্মা সেতু খুলে দেওয়া হলে দিনভর মোটরসাইকেল চালকদের নানা বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের ফলে পরের দিন সকাল থেকে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করে সেতু বিভাগ। এর ফলে পদ্মা সেতুতে প্রথম দিন যে টোল আদায় হয়েছে তা কমে এক-চতুর্থাংশে নেমেছে গতকাল মঙ্গলবার। অর্থাৎ টোল আদায় কমেছে প্রায় পৌনে এক কোটি টাকা। পদ্মা সেতুর টোল কমে যাওয়ার বিষয়ে সেতু কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী তোফাজ্জল হোসেন জানান, প্রথম ২৪ ঘণ্টায় যেসব যানবাহন পারাপার হয়েছে, তার মধ্যে ৭৫ ভাগই ছিল মোটরসাইকেল। গত সোমবার থেকে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে মোটরসাইকেলের জন্য টোল আদায় কমেছে এটি সত্য না। বিশৃঙ্খলা ও একটি দুর্ঘটনায় দুজনের মৃত্যুর পর সোমবার সকাল ৬টা থেকে মোটরসাইকেল পদ্মা সেতুতে ওঠা নিষিদ্ধ করা হয়।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close