নিজস্ব প্রতিবেদক

  ০৯ মে, ২০২২

ঢাকায় সমাজকল্যাণমন্ত্রী চিকিৎসা শুরু

হৃদরোগে আক্রান্ত সমাজকল্যাণমন্ত্রী নূরুজ্জামান আহমেদকে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল রবিবার দুপুরে রংপুরের রমেক হাসপাতাল থেকে মন্ত্রীকে ঢাকায় আনা হয়। সমাজকল্যাণমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) মিজানুর রহমান মিজান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রমেক হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে নিজ বাড়িতে অবস্থানকালে সমাজকল্যাণমন্ত্রী বুকে প্রচন্ড ব্যথা অনুভব করেন। গ্রামের বাড়ি থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে শনিবার রাত আড়াইটার দিকে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তাকে হৃদরোগ বিভাগে ভর্তি করা হয়। গতকাল বেলা সোয়া ১টার দিকে হাসপাতাল থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে রংপুর সেনানিবাসে নেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে বিমানবাহিনীর একটি হেলিকপ্টারে করে তাকে ঢাকায় নেওয়া হয়।

সাজকল্যাণমন্ত্রীর ছেলে রাকিবুজ্জামান আহমেদ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ঈদ উদ্যাপনসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে খুব ব্যস্ততার মধ্যে সময় কাটাচ্ছিলেন তার বাবা। ঠিকমতো তার বিশ্রাম নেওয়া হয়নি। শনিবার রাতেও আদিতমারী উপজেলার মহিষখোঁচা এলাকায় ঈদণ্ডপরবর্তী অনুষ্ঠানে যোগ দেন তিনি। অনুষ্ঠান শেষে বাড়িতে ফেরার পর তার বাবা বুকে অসহ্য ব্যথা অনুভব করেন। পরে রাত আড়াইটার দিকে অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের প্রধান শাকিল গফুর বলেন, মন্ত্রী বুকে ব্যথা অনুভব করেছিলেন। তবে শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল আছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ বিমল রায় জানান, মন্ত্রী হৃদরোগের সমস্যায় ভুগছিলেন। এ ছাড়া তার ডায়াবেটিস আছে। তাকে হাসপাতালে আনা হলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসা শুরু করেন। মন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা ভালো আছে।

এদিকে গতকাল দুপুরে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাকির হোসাইন সাংবাদিকদের বলেন, ঈদ উদ্?যাপনের জন্য ২৯ এপ্রিল ঢাকা থেকে লালমনিরহাটের বাড়িতে যান মন্ত্রী। এ সময় তিনি বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নেন। তখন অতিরিক্ত পরিশ্রমে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close