নিজস্ব প্রতিবেদক

  ১০ অক্টোবর, ২০২১

বাড়ল মৃত্যু, শনাক্ত আরো ৪১৫

দেশে দিনে শনাক্ত করোনাভাইরাসের রোগী প্রায় ৫ মাস পর ৫০০-এর নিচে নেমেছে, তবে মৃত্যু আগের দিনের চেয়ে প্রায় তিনগুণ বেড়েছে। গতকাল শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় ২০ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, যা আগের দিন ছিল ৭। তাদের নিয়ে কোভিড-১৯ মহামারিতে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৭ হাজার ৬৭৪। গত একদিনে ৪১৫ রোগী শনাক্ত হওয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৬১ হাজার ৮৭৮। গত ১৬ মে’র পর দৈনিক সংক্রমণের এটাই সর্বনিম্ন সংখ্যা। ১৬ মে ৩৬১ রোগী শনাক্তের খবর এসেছিল। গত ২৪ ঘণ্টায় সেরে উঠেছে ৫৪৩ জন, তাদের নিয়ে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠল ১৫ লাখ ২৩ হাজার ১৩৪ জন। এ হিসাবে দেশে এই মুহূর্তে রোগীর সংখ্যা ১১ হাজার; করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের দাপটে জুন-জুলাই মাসে এ সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছিল। এর মধ্যে জুলাই, আগস্ট ভয়াবহ অবস্থা পার করে বাংলাদেশ। ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ নতুন রোগী শনাক্ত হয়। ৫ আগস্ট ও ১০ আগস্ট ২ দিনই ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারির মধ্যে একদিনের সর্বোচ্চ সংখ্যা।

দৈনিক সংক্রমণের হারও তখন ৩২ শতাংশে উঠেছিল, সেপ্টেম্বর থেকে তা নামত নামতে ৩ শতাংশের নিচে চলে এসেছে। গত একদিনে নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ২ দশমিক ৪৫ শতাংশ, যা আগের দিন ২ দশমিক ৭৭ শতাংশ ছিল।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত একদিনে সারা দেশে মোট ১৬ হাজার ৯২৫টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৯৯ লাখ ৩১ হাজার ৮৪১টি নমুনা। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্ত হার দাঁড়িয়েছে ১৫ দশমিক ৭৩ শতাংশ; মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৭ শতাংশ। গত একদিনে শুধু ঢাকা বিভাগেই ২৬২ জনের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে, যা দিনের মোট শনাক্তের ৬৩ শতাংশের বেশি।

একদিনে মারা যাওয়া ২০ জনের মধ্যে ৯ জন ঢাকা বিভাগের, চারজন চট্টগ্রাম বিভাগের, তিনজন রংপুর বিভাগের, দুইজন ময়মনসিংহ বিভাগের এবং একজন করে মোট দুুইজন খুলনা ও বরিশাল বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। রাজশাহী ও সিলেট বিভাগ থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় কোনো মৃত্যুর খবর আসেনি। যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ১১ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। তিনজনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে এবং দুইজন করে মোট ছয়জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০, ৩১ থেকে ৪০ ও ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ছিল। তাদের মধ্যে ১৭ জন সরকারি হাসপাতালে এবং তিনজন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। তাদের ১২ জন ছিলেন পুরুষ, আর আটজন নারী।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close