রংপুর ব্যুরো

  ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১

রংপুরে মাদক কারবারির ছুরিতে এএসআই নিহত

মহানগরীর হারাগাছ থানার বাহার কাছনা তেলিপাড়া এলাকায় মাদক কারবারি পলাশের ছুরিকাঘাতে হারাগাছ থানার এএসআই পেয়ারুল ইসলাম নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশ ঘাতক পলাশকে গ্রেপ্তার করেছে। তার কাছ থেকে জব্দ করা হয় ১৫১ পিস ইয়াবা। হারাগাছ মেট্রোপলিটন থানার ওসি শওকত হোসেন পুলিশ সদস্য পেয়ারুল ইসলাম নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, গত শুক্রবার রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে হারাগাছ থানার এএসআই পেয়ারুল ইসলামের নেতৃত্বে কয়েকজন পুলিশ বাহার কাছনা তেলিপাড়া এলাকা থেকে মাদক কারবারি পলাশকে আটক করে। তার শরীর তল্লাশি চালিয়ে ১৫১ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় মাদক কারবারি পলাশ পুলিশ কর্মকর্তা এএসআই পেয়ারুল ইসলামকে তার হাতে থাকা ছুরি দিয়ে পেটে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তখন এলাকাবাসী ও পুলিশের অন্য সদস্যরা তাকে আটক করতে সক্ষম হয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় এএসআই পেয়ারুল ইসলামকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে হাসপাতালের আইসিইতে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন গতকাল শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় তিনি মারা যান। নিহত এএসআই পেয়ারুল ইসলামের বাড়ি কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার বিদ্যানন্দ গ্রামে। তার বাবার নাম আবদুর রহমান মিন্টু। এদিকে এএসআই পেয়ারুল ইসলামের নিহত হওয়ার খবর পেয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হাসপাতালে ছুটে যান।

রংপুর মেট্রোপলিটান পুলিশের উপপুলিশ পুলিশ কমিশনার মারুফ হোসেন জানান, নিজের জীবন বাজি রেখে ইয়াবাসহ আসামি পলাশকে আটক করেন এএসআই পেয়ারুল ইসলাম। এজন্য তাকে জীবন দিতে হলো। তিনি বলেন, নিহত পুলিশ কর্মকর্তার মরদেহ ময়নাতদন্ত করার পর স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলার ডায়েরি করা হয়েছে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close