প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ২১ জুন, ২০২১

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় সংক্রমণ আবারও ঊর্ধ্বমুখী

স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে দেশে নভেল করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) শনাক্ত রোগী ও মৃত্যুর হার আবারও ঊর্ধ্বমুখী। গতকাল রবিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮২ জন এবং শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ৬৪১ জন। এদিকে, ভারত সীমান্তবর্তী জেলা ও এর আশপাশের জেলায় সংক্রমণ ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। খুলনা বিভাগে এক দিনে কোভিডে সর্বোচ্চ ২৮ জন এবং রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। যশোরে আরো ছয়জনের মৃত্যু ও ৭৩ জনের কোভিড শনাক্ত হয়েছে; শার্শার প্রত্যন্ত গ্রামেগঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে সংক্রমণ। ঝিনাইদহে বেড়েছে আক্রান্তের হার ও মৃত্যুর সংখ্যা।

সংক্রমণ বাড়ায় ফরিদপুরে তিন পৌর এলাকা এবং টাঙ্গাইল ও এলেঙ্গায় ৭ দিনের বিধিনিষেধ জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। খুলনা জেলা ও মহানগরীতে আগামী ২২ জুন থেকে সাত দিনের কঠোর লকডাউন আরোপ করা হবে জানিয়েছে প্রশাসন।গোপালগঞ্জে লকডাউন ঘোষণা করা হলেও তা ঢিলেঢালাভাবে চলছে। আর স্বাস্থ্যবিধি আমলেই নিচ্ছেন না সৈয়দপুরের মানুষ। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর

------
খুলনা : খুলনা বিভাগে কোভিডে এক দিনে সর্বোচ্চ ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং কোভিড শনাক্ত হয়েছে ৭৬৩ জন। গতকাল খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আরো জানায়, ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের ১০ জেলায় ২ হাজার ৪৫৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৭৬৩ জনের কোভিড শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ১০ শতাংশ। আগের দিন শনাক্তের হার ছিল ৩৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

নতুন করে সংক্রমিত ব্যক্তিদের মধ্যে বাগেরহাটে ৬৮, চুয়াডাঙ্গায় ৬৮, যশোরে ৭৩, ঝিনাইদহে ৯০, খুলনায় ২২৩, কুষ্টিয়ায় ১৬৪, মেহেরপুরে ১৯, নড়াইলে ৪৪ ও সাতক্ষীরায় ১৪ জন রয়েছেন। মাগুরার ২৪টি নমুনা পরীক্ষায় কারো করোনা শনাক্ত হয়নি। এখন পর্যন্ত বিভাগে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা ৪৫ হাজার ৩২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৮২৫ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩৪ হাজার ৩২০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৯৪ জন।

করোনাভাইরাসের বিস্তাররোধে খুলনা জেলা ও মহানগরীতে আগামী ২২ জুন থেকে সাত দিনের কঠোর লকডাউন আরোপ করা হবে। এ সময় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য, কাঁচামাল ও ওষুধ বহনকারী যানবাহন ব্যতীত কোনো গণপরিবহন খুলনায় প্রবেশ করতে বা বের হতে পারবে না। শনিবার দুপুরে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন।

যশোর : যশোরে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। উপসর্গ নিয়ে আরো দুজন মারা গেছেন। এছাড়া ১৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭৩ জনের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৩৮ শতাংশ। এদিকে, যশোর জেনারেল হাসপাতালের ৮০ শয্যার কোভিড ডেডিকেটেড ইউনিট রোগীতে পূর্ণ হয়ে গেছে। বর্তমানে সেখানে ৮৭ জন ভর্তি রয়েছেন। আইসোলেশন ওয়ার্ডের অবস্থাও একই।

ফরিদপুর : কোভিডের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় ফরিদপুর সদর, বোয়ালমারী, ভাঙ্গা পৌর শহর এলাকায় আজ সোমবার সকাল ৬টা থেকে ২৭ জুন পর্যন্ত সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসনের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা, এই সময়ে মধ্যে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়া মার্কেট-বিপণিবিতান, মুদিদোকানসহ টি-স্টল বন্ধের আওতায় আসবে। এছাড়া শহরে অটোবাইক, রিকশা চলাচল সম্পন্ন বন্ধ থাকবে।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, বিনা কারণে কাউকেই বের হতে দেব না। শহরের প্রবেশের সব মুখে পুলিশের কঠোর নজরদারি থাকবে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ফরিদপুরের ২৬৩টি নমুনা পরীক্ষার মধ্যে ১০১টি করোনা পজিটিভ হয়েছে এবং আর মারা গেছেন আরো এক ব্যক্তি। এই নিয়ে জেলায় কোভিড-১৯ এ মৃত্যের সংখ্যা দাঁড়াল ২০০।

টাঙ্গাইল : করোনাভাইরাসে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় টাঙ্গাইল ও কালিহাতীর এলেঙ্গা পৌরসভায় সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি করেছে প্রশাসন। রবিবার দুপুরে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক আতাউল গনি বলেন, এসব এলাকায় কাঁচাবাজার, ওষুধের দোকান ছাড়া হোটেল, মার্কেটসহ সবই বন্ধ থাকবে। এছাড়াও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যবাহী ট্রাক ছাড়া গণপরিবহন, রিকশা, ইজিবাইক, সিএনজি অটোরিকশাসহ সব যানবাহন বন্ধ থাকবে।

রাজশাহী : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় দশজনের মৃত্যু হয়েছে; যার মধ্যে একজন আক্রান্ত ছিলেন বাকিরা মারা গেছেন উপসর্গ নিয়ে।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, শনিবার সকাল ৬টা থেকে রবিবার সকাল ৬টার মধ্যে বিভিন্ন সময়ে ওই দশজন মারা যান। মৃতদের মধ্যে মধ্যে রাজশাহীর ৭ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ২ জন ও নওগাঁর ১ জন। এ নিয়ে গত ২০ দিনে এ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে ২০৩ জন মারা গেলেন।

বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি কোভিড রোগীর ৫০ ভাগের বেশি গ্রাম থেকে আসছেন; যাদের অধিকাংশই কৃষক বা গৃহিনী। আর শহরের যারা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে আসছেন তাদের অধিকাংশই ব্যবসায়ী বলে জানান শামীম।

শনিবার দুইটি ল্যাবে রাজশাহীর ৪১৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৯৫ জনের শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়েছে। শনাক্তের হার হয়েছে ৪৬ দশমিক ৯৯ শতাংশ। নওগাঁর ৩৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২২ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া গেছে। যা শনাক্তের হার ৫৯ দশমিক ৪৬ শতাংশ। এছাড়াও চাঁপাইনবাবগঞ্জের ২০০ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬৩ জনের পজিটিভ আসে। এখানে শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ৫০ শতাংশ।

বেনাপোল (যশোর) : যশোর সীমান্তের শার্শা উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামেগঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। রবিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় উপজেলা থেকে পাঠানো ৪৩টি নমুনা পরীক্ষায় ২৯ জনের করোনাভাইরাস পজিটিভ এসেছে। শনাক্তের হার ৬৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ।

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনম সেন্টারে গত এক সপ্তাহের আরটিপিসিআর পরীক্ষার ফল বিশ্লেষণে দেখা গেছে, যাদের শরীরে এই সময়ে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, তাদের মধ্যে শার্শার প্রায় অর্ধশত গ্রামের বাসিন্দারা রয়েছেন।

মহামারির প্রথম ধাপে কেবল বেনাপোল ও নাভারণ এলাকায় কোভিড রোগী পাওয়া গেলেও দ্বিতীয় ধাপে তা প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে।

ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহে বেড়েছে করোনায় আক্রান্তের হার ও মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৯০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৫৪ দশমিক ৮৭ ভাগ। সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ৪ জন। মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা উপসর্গে একজন মারা গেছেন।

গোপালগঞ্জ : করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গোপালগঞ্জে লকডাউন ঘোষণা করা হলেও তা ঢিলেঢালাভাবে চলছে। গত শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে সাত দিনের লকডাউন ঘোষণা করেন জেলা প্রশাসক সাহিদা সুলতানা। জেলা প্রশাসনের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২৪ জুন পর্যন্ত চলবে এ লকডাউন। লকডাউনের ৩য় দিনেও কার্যকর হয়নি তেমন। যেসব এলাকাগুলো ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার লতিফপুর ইউনিয়ন, মুকসুদপুর পৌরসভা ও কাশিয়ানী উপজেলার সদর ইউনিয়ন।

সৈয়দপুর (নীলফামারী) : সৈয়দপুরে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। প্রতিদিন দিনাজপুর থেকে সৈয়দপুরে আসছে হাজার হাজার মানুষ। এছাড়া রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ট্রাক ও পিকাপ যোগে আসছে আম। এতে করে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকলেও সাধারণ মানুষ তা আমলেই নিচ্ছেন না।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close