আগাম ভোট ছাড়াল ৭ কোটি

প্রকাশ : ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন আগামী ৩ নভেম্বর। এরই মধ্যে রেকর্ড ৭ কোটিরও বেশি মানুষ আগাম ভোট দিয়েছেন; যা ২০১৬ সালের নির্বাচনে পড়া মোট ভোটের অর্ধেকের বেশি। গতকাল যুক্তরাষ্ট্রের ইলেকশন প্রজেক্ট এ তথ্য জানিয়েছে। বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ভোটের দিন করোনার ঝুঁকি এড়াতেই আগাম ভোটের পথ বেছে নিয়েছেন দেশটির বাসিন্দারা। খবর বিবিসি, সিএনএন ও আলজাজিরার।

ইলেকশন প্রজেক্টের পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার পর্যন্ত আগাম ভোট পড়েছে ৭ কোটি ১০ লাখ ৬৩ হাজার ৫৯৩টি। এর মধ্যে ডাক মারফত ব্যালট এসেছে ৪ কোটি ৭৭ লাখ ৫৩ হাজার ১৩১টি। আর নির্ধারিত বুথে গিয়ে সশরীরে আগাম ভোট দিয়েছেন ২ কোটি ৩৩ লাখ ১০ হাজার ৪৬২ জন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, এবারের নির্বাচনে রেকর্ড-ভাঙা গতিতে আগাম ভোট পড়েছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে আগাম ভোটের এই হার গত এক শতাব্দীর মধ্যে সর্বোচ্চ হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ইলেকশন প্রজেক্টের প্রশাসক ও ইউনিভার্সিটি অব ফ্লোরিডার অধ্যাপক মিখায়েল ম্যাকডোনাল্ড আগাম ভোটের এই উচ্চ হারের ব্যাপারে বলেছেন, এবারের নির্বাচনে ১০ কোটি আগাম ভোট পড়তে পারে; যা দেশটির মোট ভোটের প্রায় ৪০ শতাংশের সমান। আর আগাম ভোটের এই হার ১৯০৮ সালের পর সর্বোচ্চ।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ২০১৬ সালের নির্বাচনে পড়া মোট ভোটের অর্ধেকের বেশি ভোট এখনই আগাম দেওয়া হয়েছে। ওই বছর দেশটির নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছিল ১৩ কোটি ৭৫ লাখ। আর আগাম ভোট পড়েছিল ৫ কোটি ৭২ লাখ।

এদিকে ডাকযোগের ভোটে ডেমোক্রেটিক পার্টি বেশি আগ্রহী হওয়ায় আগাম ভোটে দলটির প্রার্থী জো বাইডেন ভালো করতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ঐতিহাসিকভাবে রিপাবলিকানরাও মার্কিন নির্বাচনে আগাম ভোট দিয়ে থাকলেও এবারের নির্বাচনে ডাকযোগের ভোট নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প বারবার সমালোচনা এবং আক্রমণ করায় সেই সংখ্যা কমতে পারে।

ডাকযোগের ভোট ব্যবস্থাপনায় ব্যাপক কারচুপি হতে পারে বলে ডোনাল্ড ট্রাম্প দীর্ঘদিন ধরে আশঙ্কা জানিয়ে আসছেন। সামগ্রিকভাবে আগাম ভোটে রিপাবলিকানদের এক ভোটের বিপরীতে ডেমোক্র্যাটরা দুই ভোটের ব্যবধান ধরে রাখতে পেরেছে বলে পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে। তবে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে রিপাবলিকান শিবির ভোটের এই ব্যবধান কমিয়ে এনেছে।

 

 

"