গাজী আজম হোসেন, বেরোবি

  ১৩ জুন, ২০২৪

চ্যাম্পিয়ন বেরোবি শিক্ষার্থীদের টিম ইমপ্যাক্ট হ্যাকস্কোয়াড

সম্প্রতি বিশ্ব ব্যাংকের আয়োজনে গ্রিন আর্থ কোয়েস্ট ‘সবুজ পৃথিবীর সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। সেখানে দেশ সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে পেছনে ফেলে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রংপুরের ৭৫ একরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি) শিক্ষার্থীদের টিম ইমপ্যাক্ট হ্যাকস্কোয়াড। রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালের রূপসী বাংলা বলরুমে এর গ্র্যান্ড ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণ হয়।

এ প্রতিযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নিবন্ধিত ৯৭৪টি দল থেকে অনলাইন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে জাতীয় স্তরে প্রতিযোগিতার জন্য ৩২টি দল নির্বাচিত হয়। এই ৩২টি দল লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিয়ে চূড়ান্ত পর্বের জন্য ৮টি দল উত্তীর্ণ হয়। বিশ্ববিদ্যালয় দলসমূহে চ্যাম্পিয়ন হয় টিম ইমপ্যাক্ট হ্যাকস্কোয়াড, রানার্সআপ হয় টিম সোলারিজ সেন্টিনেলস, ২য় রানার্সআপ হয় টিম ফিউশন ফ্রন্টিয়ার ও ৩য় রানার্সআপ হয় টিম স্ট্রবেরি সর্টকেক।

চ্যাম্পিয়ন টিম ইমপ্যাক্ট হ্যাকস্কোয়াড সদস্য হিসেবে ছিলেন বেরোবির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের শুভ চাকমা, রাইসুল হাসান মুকুট ও মো. আশিকুর রহমান। তারা তিনজনেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থী।

এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে তারা অনলাইন কুইজ প্ল্যাটফরম ব্যবহার করে তথ্য-প্রযুক্তিতেও দক্ষতা অর্জন করেছে। বাংলাদেশের টেকসই প্রবৃদ্ধির জন্য পরবর্তী প্রজন্মের তরুণ নেতৃত্ব বের করে আনাই ছিল এই আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য। শুধু সবুজ প্রবৃদ্ধি এবং ডিজিটাল দক্ষতাই নয়, ফলিতবিজ্ঞান ও গণিত, ভাষা ও সংস্কৃতি এবং কম কার্বন নিঃসরণ ও পরিবেশবান্ধব অবকাঠামো বিষয়েও জ্ঞান-অর্জন করেছে এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীরা।

চ্যাম্পিয়ন দলের মো. আশিকুর রহমান নিজের অনুভূতি জানিয়ে বলেন, আমাদের দেশ বিভিন্ন কারণে দুর্যোগের সম্মুখীন হচ্ছে এবং দিন দিন পরিবেশের ভারসাম্য হারিয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা তরুণরা কীভাবে ছোট ছোট সমাধান বের করে দেশকে টেকসই উন্নয়নের দিকে নিয়ে যেতে পারি, সেই লক্ষ্যে এই আয়োজন। আমাদের দল ‘ইমপ্যাক্ট হ্যাকস্কোয়াড’ একটা অ্যাপের কনসেপ্ট দেয়, যার মাধ্যমে নগরের মানুষ গাছপালা রোপণ, বিদ্যুৎসাশ্রয়ী অ্যাপ্লায়েন্সেস ব্যবহার করা, বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ অন্যান্য পরিবেশ রক্ষামূলক কাজে অংশগ্রহণ করবে। এতে করে শহরের তাপমাত্রা এবং কার্বন নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

শিক্ষার্থীদের এমন অর্জনে অভিনন্দন জানিয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আবু রেজা মো. তৌফিকুল ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীদের এই অর্জনে আমরা আনন্দিত। আমাদের শিক্ষার্থীরা গবেষণাসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় ভালো করছে। এটি শুধু আমাদের বিভাগের নয় পুরো বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্জন। তাদের এই প্রতিযোগিতার জন্য আমরা একটি পরীক্ষা সময়ও পরিবর্তন করেছি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, বিশেষ অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ড. এ কে আবদুল মোমেন, অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম ও বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র এডুকেশন স্পেশালিস্ট মিস তাশমিনা রহমান। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close