মো. মিরাজুল আল মিশকাত

  ১১ অক্টোবর, ২০২১

হাবিপ্রবি খুলছে ২১ অক্টোবর, চার মাসেই শেষ হবে সেমিস্টার

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) ৫৮তম অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় খুলছে ২১ অক্টোবর। পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের করোনাকালীন অ্যাকাডেমিক ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে ছয় মাসের সেমিস্টার চার মাসে সম্পন্ন করার জন্য নীতিমালা সর্বসম্মতিক্রমে পাস হয়েছে বলে জানা যায়। এ ছাড়া শিক্ষার্থীদের ক্লাস আওয়ার ঠিক রেখে প্রতিটি ক্লাস ৫০ মিনিটের পরিবর্তে ৭০ মিনিট নির্ধারণ করা হয়েছে আজকের সভায়।

অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুল হক বলেন, ১৮ অক্টোবর থেকে পর্যায়ক্রমে হলগুলো খুলে দেওয়া হবে এবং ২১ তারিখ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয়, চতুর্থ ও মাস্টার্সে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষা সশরীরে শুরু হবে (শর্তসাপেক্ষে)। সেইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের করোনাকালীন ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সেমিস্টারের সময়কাল চার মাসে কমিয়ে নিয়ে আনা হয়েছে।

এদিকে হাবিপ্রবির জনসংযোগ শাখা জানায়, অনলাইন ও অফলাইন উভয় মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষা চলমান থাকবে। লেভেল ১ (২০২০ সালে ভর্তিকৃত ও তাদের সঙ্গে রি-অ্যাড হওয়া শিক্ষার্থী) এবং লেভেল ২ (২০১৯ সালে ভর্তিকৃত ও তাদের সঙ্গে রি-অ্যাড হওয়া শিক্ষার্থী)-এর সব ধরনের ক্লাস ও পরীক্ষা অনলাইনে চলমান থাকবে। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষে পরবর্তী অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল সম্পন্ন করে অফলাইন পরীক্ষা ও অন্যান্য বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সব মাস্টার্স-এমবিএ ও অনার্সের লেভেল ৪ (২০১৭ সালে ভর্তিকৃত ও তাদের সাথে রি-অ্যাড) এবং লেভেল ৩ (২০১৮ সালে ভর্তিকৃত ও তাদের সঙ্গে রি-অ্যাড)-এর শিক্ষার্থীদের সেমিস্টার ফাইনাল, ব্যবহারিক ক্লাস (যেগুলো হাতে কলমে প্রদর্শন প্রয়োজন) ও মিডটার্ম পরীক্ষা (আলোচনা সাপেক্ষে অনলাইন বা অফলাইনে) সশরীরে অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়াও সব তত্ত্বীয় ক্লাস, ব্যবহারিক ক্লাস (যেগুলো হাতে কলমে প্রদর্শনের প্রয়োজন নেই) ও কুইজ পরীক্ষা যথারীতি অনলাইনে অনুষ্ঠিত হবে।

জনসংযোগ শাখা আরো জানায়, প্রথমে মাস্টার্স-এমবিএ ও লেভেল ৪ (২০১৭ সালে ভর্তিকৃত ও তাদের সঙ্গে রি-অ্যাড) এবং লেভেল ৩ (২০১৮ সালে ভর্তিকৃত ও তাদের সঙ্গে রি-অ্যাড)-এর শিক্ষার্থীদের জন্য প্রথম ধাপে হল খুলে দেওয়া হবে। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল সম্পন্ন করে পরবর্তী ব্যাচগুলোকে পর্যায়ক্রমে হলে উঠানো হবে। হলে উঠতে হলে সংশ্লিষ্ট হলের প্রকৃত আবাসিক শিক্ষার্থী হতে হবে। হলে প্রবেশের সময় হল কর্তৃক ইস্যুকৃত ‘রেসিডেন্সিয়াল আইডি কার্ড’ প্রদর্শন করতে হবে। কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন কার্ড (কমপক্ষে ১ ডোজ নেওয়ার) প্রদর্শন করতে হবে। উল্লেখ্য প্রথম দিন (১৮ অক্টোবর) তাজউদ্দিন আহমেদ ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল খুলে দেওয়া হবে। ১৯ অক্টোবর খুলবে শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব ও ডরমেটরিসহ দুই হল। এ ছাড়া শেখ রাসেল হল, আইভি রহমান হল ও সুফিয়া কামাল হল ২০ অক্টোবর খুলে দেওয়ার কথা রয়েছে।

 

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close