কলেজ শিক্ষকদের নিয়ে গ্রিন ইউনিভার্সিটির ওয়েবিনার

নিউ নরমাল যুগের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় অনলাইন শিক্ষার বিকল্প নেই

প্রকাশ : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

করোনাকালীন শিক্ষার খুঁটিনাটি নিয়ে ‘অনলাইন টিচিং লার্নিং ইন নিউ নরমাল এনভায়রনমেন্ট’ শীর্ষক এক ওয়েবিনার গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২১ সেপ্টেম্বর সোমবার আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কলেজ ও পলিটেকনিক শিক্ষকরা অনলাইন প্ল্যাটফরম জুমের মাধ্যমে এই ওয়েবিনারে অংশগ্রহণ করেন। এতে গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। আলোচনায় অংশ নেন ইইই বিভাগের চেয়ারপারসন ও সিইটিএল ডিরেক্টর ড. এএসএম শিহাবুদ্দিন, রেজিস্ট্রার মো. সাইফুল ইসলাম ও লেকচারার হাসান আল যুবায়ের রনি। বক্তারা বলেন, করোনাকালীন সময়ে শিক্ষাখাত গোটা বিশ্বেই চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তো বটেই, স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীরাও নামা প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হচ্ছেন। আবার যথাযথ টেকনিক্যাল জ্ঞান না থাকায় অনলাইন ক্লাস নিতে গিয়েও সমস্যায় পড়ছেন শিক্ষকরা। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে, নিউ নরমাল যুগের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রযুক্তিগত জ্ঞান ও অনলাইন শিক্ষার বিকল্প নেই। অনুষ্ঠানে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. গোলাম সামদানী ফকির বলেন, করোনা মহামারি যেমন মানবজীবনকে বাধাগ্রস্ত করেছে, তেমনি তা অনলাইন শিক্ষায় সম্ভাবনার দ্বার খুলে দিয়েছে। এই সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বিশ^বিদ্যালয়-কলেজ শিক্ষকদেরও আধুনিক ও যুগোপযোগী দক্ষতা অর্জন করতে হবে। ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, করোনা মহামারীর কারণে গোটা বিশ^ পরিস্থিতি আজ জর্জরিত। অথচ শিক্ষা চলমান প্রক্রিয়া, যেকোন উপায়ে এটাকে চালিয়ে নিতে হবে। ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের গবেষণা তুলে ধরে তিনি বলেন, একুশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জে টিকে থাকতে হলে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে যেমন সমস্যা সমাধানের যোগ্যতা থাকতে হবে, তেমনি তাদের ক্রিয়েটিভ থিংকার হতে হবে। এ সময় করোনা পরিস্থিতিতে অনলাইন শিক্ষায় গ্রিন ইউনিভার্সিটির নানা উদ্যোগ তুলে ধরেন তিনি। অনলাইন শিক্ষা ও ক্লাস পরিচালনায় বিভিন্ন প্ল্যাটফরম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন ড. এএস এম শিহাবুদ্দিন ও হাসান আল যুবায়ের রনি। গ্রিন ইউনিভার্সিটির নানা সুবিধা নিয়ে আলোচনা করেন বিশ^বিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. সাইফুল ইসলাম। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

 

 

"