আন্তর্জাতিক ডেস্ক

  ২৪ জুন, ২০২৪

মার্কিন রণতরী আইজেনহাওয়ারে হামলার দাবি হুতিদের

ইসরায়েল অধিকৃত ফিলিস্তিনের হাইফা বন্দরের কাছে একটি বাণিজ্যিক জাহাজে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুতিরা। জাহাজটি লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী। একই সঙ্গে মার্কিন বিমানবাহী রণতরী ইউএসএস আইজেনহাওয়ারে ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র হামলার দাবি করেছে হুতিরা। খবর আল-জাজিরার।

হুতিদের সামরিক মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারি একটি টেলিভিশন বার্তায়, আরব সাগরে শনিবার ‘ট্রান্সওয়ার্ল্ড নেভিগেটর’ নামে লাইবেরিয়া-পতাকাবাহী বাল্ক জাহাজে সরাসরি ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হেনেছে।

ইয়াহিয়া সারি বলেন, জাহাজটিকে লক্ষ্যবস্তু করা হয়েছে, কারণ এটির মালিকানাধীন কোম্পানি অধিকৃত ফিলিস্তিনের হাইফা বন্দরে প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করেছে। ইসরায়েলি বন্দরে ডক করা সব জাহাজ লক্ষ্যবস্তু বলে বিবেচিত হবে।

হুতি মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারি দাবি করেন, মার্কিন রণতরী ইউএসএস আইজেনহাওয়ারেও ব্যালাস্টিক ও ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। এই হামলায় মার্কিন রণতরীর কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে কি না, তা বলতে পারেননি সারি। তবে ইয়াহিয়া সারির দাবি, এই হামলার উদ্দেশ্য সফল হয়েছে। যদিও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, হুতিদের দাবিটি মিথ্যা।

হুতিদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় গত সপ্তাহে গ্রিক পতাকাবাহী জাহাজ এমভি টিউটর ডুবে যাওয়ার পর নতুন করে এই আক্রমণের দাবি করল সশস্ত্র হুতিরা। তা ছাড়া এর আগেও হুতি ও তাদের সমর্থনকারী সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টগুলো থেকে বারবার লোহিত সাগরে বিমানবাহী রণতরীটিকে আঘাত, এমনকি ডুবিয়ে দেওয়ারও মিথ্যা দাবি করেছে।

গাজায় ইসরায়েলের যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে এই অঞ্চলে মার্কিন রণতরীটি অভিযান পরিচালনা করছিল। আট মাসেরও বেশি সময় মোতায়েন থাকার পর ইউএসএস আইজেনহাওয়ারকে দেশে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে মার্কিন সামরিক কমান্ড। এরই মধ্যে হামলার দাবি তুলল হুতিরা।

ইয়েমেনের হুতিরা মূলত গাজায় যুদ্ধের প্রতিবাদে লোহিত ও আরব সাগরে ইসরায়েল ও মার্কিন স্বার্থসংশ্লিষ্ট জাহাজে হামলা শুরু করেছিল। পরে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক বাহিনী পাল্টা অভিযানে নামলে হুতিরাও তাদের আক্রমণ বাড়িয়েছে।

মার্কিন ও যুক্তরাজ্যের সামরিক বাহিনী ইয়েমেনের হুতি-নিয়ন্ত্রিত এলাকায় গোষ্ঠীটির সামরিক সক্ষমতা দুর্বল করতে বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close