প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

  ০৫ ডিসেম্বর, ২০২১

৩৮ দেশে ওমিক্রনের থাবা

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন বিশ্বের ৩৮ দেশে শনাক্ত হয়েছে। তবে এ পর্যন্ত এই ধরনে আক্রান্ত কারো মৃত্যু হয়নি। গত শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এসব তথ্য জানিয়েছে। ব্যাপকভাবে জিনগত রূপ পরিবর্তনে সক্ষম এই ধরনের বিস্তার ঠেকাতে বিশ্বব্যাপী নতুন করে বিধিনিষেধ আরোপ করা হচ্ছে। ডব্লিউএইচও বলছে, আগামী কয়েক মাসে ইউরোপে মোট কোভিড সংক্রমণের অর্ধেকই হতে পারে অমিক্রনের কারণে। খবর এএফপির।

সর্বশেষ যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ায় স্থানীয়ভাবে ওমিক্রনে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছে। করোনার এই নতুন ধরন প্রথম শনাক্ত হওয়া দক্ষিণ আফ্রিকায় এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। ডব্লিউএইচও সতর্ক রয়েছে, তারা সপ্তাহজুড়ে করোনার এই নতুন ধরন কতটা সংক্রমণশীল, কতটা গুরুতর অবস্থা তৈরি করে, কীভাবে চিকিৎসা করা যায় এবং ভ্যাকসিন কতটা কার্যকর তা খতিয়ে দেখছে। ডব্লিউএইচওর জরুরি সেবা পরিচালক মাইকেল রায়ান বলেন, আমরা সব প্রশ্নের উত্তর পেতে যাচ্ছি যেগুলো প্রত্যেকের জানা প্রয়োজন। সংস্থাটি জানায়, ওমিক্রনে কেউ মারা গেছে এখন পর্যন্ত এমন খবর পাওয়া যায়নি। তবে এটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে যার কারণে আশঙ্কা করা হচ্ছে পরবর্তী কয়েক মাসে ইউরোপে অর্ধেকের বেশি মানুষ আক্রান্ত হতে পারে।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) প্রধান ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা বলেন, ডেল্টার মতো করোনার নতুন এ ধরনও বিশ্ব অর্থনীতির পুনরুদ্ধারের গতি কমিয়ে দেবে। তিনি সবাইকে সতর্ক হওয়ারও আহ্বান জানান। দক্ষিণ আফ্রিকায় গত ২৪ নভেম্বর সর্বপ্রথম ওমিক্রন শনাক্তের পর এর প্রাথমিক গবেষণার রিপোর্ট বলছে, ডেল্টা বা বিটার চেয়ে এর সংক্রমণ তিন গুণ বেশি। এদিকে, রেডক্রসের প্রধান ফ্রান্সেসকা রোকা বলেন, বিশ্বব্যাপী টিকা বৈষম্যের কারণে কত বড় বিপদ আসতে পারে, ওমিক্রন সংক্রমণই তার বড় প্রমাণ। তিনি আরো বলেন, বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে বলেছেন, টিকাদানের হার যেখানে সবচেয়ে কম সেখানে এটি বেশি ছড়াচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে গত শুক্রবার আরো ছয়টি রাজ্যে ওমিক্রন শনাক্তের খবর পাওয়া গেছে। দেশটির সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন জানিয়েছে, আরো কোনো রাজ্যে ছড়িয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে দক্ষিণ আফ্রিকাফেরত এক শিক্ষার্থীর ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। এদিকে, ভারতে জিম্বাবুয়ে থেকে ফেরা একজনের ওমিক্রন শনাক্তের খবর মিলেছে। ওমিক্রন নিয়ে প্রাথমিক একটি গবেষণা প্রকাশ করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিজ্ঞানীরা। সেখানে দেখা গেছে, ডেলটা ও বেটা ধরনের তুলনায় ওমিক্রনের পুনরায় সংক্রমিত করার ক্ষমতা তিন গুণ বেশি। এ ছাড়া আগে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে গড়ে ওঠা প্রতিরোধব্যবস্থা ভেঙে দেওয়ার সক্ষমতা ওমিক্রনের রয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকায় শিশুদের মধ্যে অমিক্রনের সংক্রমণ বাড়ছে। দেশটির চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, অমিক্রন শনাক্ত হওয়ার পর থেকে দেশটিতে পাঁচ বছরের কম বয়সি শিশুদের হাসপাতালে ভর্তির হার ঊর্ধ্বমুখী। তবে তারা বলছেন, কম বয়সিদের ক্ষেত্রে যে ঝুঁকি বেশি, তা এখনই বলা যাচ্ছে না।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close