পাকিস্তানে সমাবেশে গ্রেনেড হামলা, আহত ৩০

প্রকাশ : ০৭ আগস্ট ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারত শাসিত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের এক বছর পূর্তির দিন পাকিস্তানের করাচিতে আয়োজিত একটি সমাবেশে গ্রেনেড হামলায় অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। আহতদের দ্রুত বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। একজনের অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন প্রাদেশিক স্বাস্থ্য বিভাগের এক কর্মকর্তা। করাচির পুলিশ প্রধান গুলাম নবী মেমন বলেছেন, সমাবেশে গ্রেনেড ছুড়ে মারা হয়েছে। এতে কয়েকজন আহত হয়েছে। বিচ্ছিন্নতাবাদী একটি সশস্ত্র গোষ্ঠী সিন্ধুদেশ রেভল্যুশনারি আর্মি (এসআরএ) এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। গত কয়েক মাসে এ গোষ্ঠীটি সক্রিয় ছিল। কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের বর্ষপূর্তির দিন গত বুধবার পাকিস্তানজুড়ে আরো সমাবেশ হয়েছে। তার মধ্যেই করাচির সমাবেশে হামলা হয়। ২০১৯ সালের ৫ আগস্টে ভারত সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিলের মাধ্যমে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের মর্যাদা কেড়ে নিয়ে অঞ্চলটিকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করেছিল। এর প্রথম বর্ষপূর্তিকে ঘিরে উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে ভারত শাসিত কাশ্মীরে আগেই দুই দিনের কারফিউ জারি হয়। মোতেয়েন হয় অতিরিক্ত সেনাও। পাকিস্তানের করাচিতে গত বুধবারের সমাবেশ আয়োজন করেছিল জামাত-ই-ইসলামি। গ্রেনেড হামলার পর সমাবেশটি বাতিল করা হয়। সিন্ধুদেশ রেভল্যুশনারি আর্মি (এসআরএ) গত জুনেও তিনটি হামলায় ছয়জন নিহতের ঘটনার দায় স্বীকার করেছিল। এই গোষ্ঠীটি পাকিস্তান ফেডারেশন থেকে সিন্ধু প্রদেশের বিচ্ছিন্নতা দাবি করে আসছে। বেলুচিস্তান লিবোরেশন আর্মিরও আনুগত্য স্বীকার করেছে গোষ্ঠীটি। বেলুচিস্তান লিবারেশন আর্মি উত্তর-পশ্চিম পাকিস্তানে বেলুচিস্তানের বৃহত্তর স্বায়ত্তশাসনের জন্য লড়াই করে আসছে।

 

"