নিজস্ব প্রতিবেদক ও বগুড়া প্রতিনিধি

  ০৮ জুলাই, ২০২৪

জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা শুরু

বগুড়ায় ৫ জনের মৃত্যু

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় অনুষ্ঠান শ্রী শ্রী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা উৎসব শুরু হয়েছে গতকাল রবিবার। রীতি অনুযায়ী প্রতি বছর চন্দ্র আষাঢ়ের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে শুরু হয় এ রথযাত্রা।

গতকাল রবিবার বিকেল ৩টায় ইসকনের প্রধান কার্যালয় স্বামীবাগের আশ্রম থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রাসহ ঢাকেশ্বরী মন্দিরে যায় জগন্নাথ দেবের রথ। বর্ণাঢ্য সাজে তিনটি বিশাল রথে জগন্নাথ দেব, শুভদ্রা, বলরামের প্রতিকৃতিসহ শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি জয়কালী মন্দির, মতিঝিল শাপলা চত্বর, দৈনিক বাংলার মোড়, গোলাপ শাহ মাজার, হাইকোর্ট মোড়, দোয়েল চত্বর, রমনা কালীমন্দির, টিএসসি, জগন্নাথ হল ও পলাশী হয়ে ঢাকেশ্বরী মন্দিরে গিয়ে শেষ হয়। আগামী ১৫ জুলাই বিকেল ৩টায় ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে উল্টোরথের মধ্য দিয়ে উৎসব শেষ হবে। ইসকনের উৎসব উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক দ্বিজমনি গৌরাঙ্গ দাস বলেন, বিশ্বশান্তি ও মঙ্গল কামনায় অগ্নিহোত্র যজ্ঞের মধ্য দিয়ে আজ রবিবার (গতকাল) উৎসবের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে।

রাজধানীর তাঁতীবাজারের জগন্নাথ জিউঠাকুর মন্দিরের রথযাত্রা তাঁতীবাজারের কোতোয়ালি রোড থেকে শুরু হয়ে ইসলামপুর, সদরঘাট মোড় ও ইংলিশ রোড হয়ে তাঁতীবাজার দুর্গামণ্ডপ প্রাঙ্গণে শেষ হয়। জয়কালী রোডের রামসীতা মন্দিরেও নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। শাঁখারীবাজার একনাম কমিটির রথযাত্রাটি শুরু হয়ে মাধব গৌড়ের মঠে শেষ হয়। রথযাত্রা উপলক্ষে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি, বাংলাদেশ ছাত্র-যুব ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে সর্বস্তরের মানুষকে শুভেচ্ছা জানানো হয়েছে।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, জগন্নাথ দেব হলেন জগতের অধীশ্বর। তার অনুগ্রহ পেলে মানুষের মুক্তি লাভ হয়। জীবরূপে তাকে আর জন্ম নিতে হয় না। এ বিশ্বাস থেকেই রথের ওপর জগন্নাথ দেবের প্রতিমূর্তি রেখে যাত্রা করেন তারা।

রথযাত্রায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ৫ জনের মৃত্যু : বগুড়ায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শ্রী শ্রী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় অন্তত ৩৭ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়েছে।

গতকাল রবিবার বিকাল সোয়া ৫টার দিকে বগুড়া শহরের সেউজগাড়ী আমতলা মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সদর থানা?র পরিদর্শক (তদন্ত) শাহীনুজ্জামান শাহীন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নিহতরা হ?লেন অলোক সরকার (৪০), অতশী রানী (৪০), র?ঞ্জিতা মোহন্ত (৬০), নরেশ মোহন্ত (৬৫) এবং অজ্ঞাত এক নারী। তারা শহরের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিকাল ৫টার দিকে শহরের সেউজগাড়ী ইসকন ম?ন্দির থেকে রথযাত্রা? শুরু হয়। বিকাল সোয়া ৫টার দিকে সেউজগাড়ী আমতলা মোড়ে পৌঁছলে র?থের চূড়াটি সড়কের ওপর দিয়ে যাওয়া উচ্চ ভোল্টের বৈদ্যুতিক তা?রের সংস্প?র্শে আসে। এতে আগুন ধরে যায়। এ সময় র?থের ওপরে এবং নিচে বসে থাকা অন্তত ২৫ জন বিদ্যুৎস্পৃষ্টে আহত হন। তাদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান? মে?ডি?েকল ক?লেজ হাসপাতা?ল ও বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে পাঁচজনকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। বাকিরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বগুড়ার পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী ব?লেন, র?থের চূড়া?টি বিদ্যুতের তা?রের সংস্প?র্শে এলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। আহত?দের মধ্যে শহীদ জিয়াউর রহমান? মে?ডি?েকল ক?লেজ হাসপাতা?লে চারজন ও মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে একজন মারা যান। তাদের পরিচয় জানা যায়নি। আমরা বিস্তারিত খোঁজখবর নিচ্ছি।

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. আবদুল ওয়াদুদ বলেন, আহত অবস্থায় ৪১ জনকে আমাদের হাসপাতালে আনা হয়েছে। এর মধ্যে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। পরে আরো একজনের মৃত্যু হয়। এ ছাড়া ৩৫ জন কমবেশি দগ্ধ হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা চলছে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close