দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি

  ২৫ জুন, ২০২৪

রাসেলস ভাইপার ভেবে পিটিয়ে মারল অজগর

কোনো সংবাদ বা তথ্যকে গুজব আকারে বা যেকোনো খারাপ মতলবে প্রচার- প্রকাশ করলে তা সমাজ ও নিরীহ প্রাণীদের জন্য প্রাণঘাতী হতে পারে। আগা-মাখা না বোঝেই একদল লোক সামাজিক গণমাধ্যমে এখন রাসেলস ভাইপার সম্পর্কে অতিরঞ্জিত প্রপাগান্ডা ও খবর প্রকাশ করছেন। এতে এই সাপ সম্পর্কে দেশের অনেক এলাকায় তৈরি হয়েছে আতঙ্ক। নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুরও এর বাইরে নয়। অজগর বিষহীন নিরীহ সাপ। কিন্তু আতঙ্কিত মানুষ রাসেলস ভাইপার ভেবে সেখানে একটি অজগরের বাচ্চাকে পিটিয়ে মেরেছে। রাসেলস ভাইপার হুজুগে প্রাণ দিতে হলো এ অজগর সাপকে। স্থানীয় প্রশাসন বলেছে, আতঙ্কিত হয়ে সাপ মেরে ফেলা ঠিক না। এতে প্রকৃতিতে প্রাণবৈচিত্র্যের ক্ষতি হয়। যা আমাদের খাদ্য শৃঙ্খলে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।

ভারত সীমান্তবর্তী নেত্রকোনার দুর্গাপুরে বিষাক্ত রাসেলস ভাইপার সাপ মনে করে একটি অজগর সাপের বাচ্চাকে পিটিয়ে মেরেছে এলাকাবাসী। গত রবিবার রাতে উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের ফারংপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, রবিবার রাতে ফারংপাড়া গ্রামের রাস্তায় একটি মোটরসাইকেলের চাকার নিচে পড়ে একটি সাপ, এই সময় এলাকাবাসী সাপটিকে রাসেলস ভাইপার ভেবে আতঙ্কিত হয়ে পিটিয়ে মারে। পরে মূলত সাপটি একটি অজগর সাপের বাচ্চা বলে বুঝতে পারে তারা।

এদিকে গত ১৯ জুন দুর্গাপুর উপজেলার চণ্ডিগড় ইউনিয়নের ফেচিয়া উত্তরপাড়া গ্রামে মাছ ধরা জালে একটি অজগর সাপ ধরা পড়ে। পরে স্থানীয়রা অজগর টিকে পিটিয়ে হত্যা করে। এর ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রাসেলস ভাইপার বলে ভাইরাল করে। ফলে অনেকের মধ্যেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

দুর্গাপুর উপজেলা বন কর্মকর্তা মো. দেওয়ান আলী বলেন, পিটিয়ে হত্যা করা সাপটি একটি অজগর। সীমান্ত এই এলাকায় অজগর সাপের দেখা মিলে প্রায়ই। আমরা আবার সেগুলোর খোঁজ পেলে উদ্ধার করে বনে অবমুক্ত করি। তাছাড়া এখানে স্থানীয় একটি বন্য প্রাণী রক্ষায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন রয়েছে তারাও আমাদের একাজে সহযোগিতা করে। তিনি আরো বলেন, রাসেলস ভাইপার বা যেকোনো সাপকে হত্যা না করে জাতীয় হেল্পলাইন ৩৩৩ নম্বরে ফোন করে খবর দিলে বা আমাদের জানালে আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেব।

দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম রকিবুল হাসান জানান, দুর্গাপুরে রাসেলস ভাইপার সাপের দেখা মেলার ঘটনাটি এখন পর্যন্ত সঠিক নয়। যারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ ধরনের গুজব ছড়াচ্ছে তাদের শনাক্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close