সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি

  ১৬ জুন, ২০২৪

চলনবিলে অবৈধ দখলদাররা মাছ চাষ করতে পারবে না

- জুনাইদ আহমেদ পলক

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যে ৩০০ কিলোমিটার খাল খনন করে দিয়েছেন, সেই খাল দখলমুক্ত রাখার জন্য ‘জাল যার জলা তার’ নীতি অনুসরণ করে স্থানীয় প্রশাসনের নেতৃত্বে অভিযান চলমান আছে। চলনবিলের খালে বা নদীতে কোনো অবৈধ দখলদার মাছ চাষ করতে পারবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৫ বছরে পিছিয়ে পড়া কাঁদাখুচা চলনবিলকে আজ উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করেছেন। সিংড়ায় স্কুল-কলেজের নতুন ভবন, রাস্তা, বিদ্যুৎ, ইন্টারনেট সবকিছুই গত ১৫ বছরে উপহার দিয়েছেন, রাস্তা করে দিয়েছেন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।

গত শনিবার বেলা ১১টায় সিংড়া উপজেলার ইটালি ইউনিয়নের সাঁতপুকুরিয়ায় মুজিব কিল্লা এবং ফসল সংগ্রহ ও মজুদ কেন্দ্র এবং থ্রেশিং ফ্লোর নির্মাণকাজ ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হা-মীম তাবাসসুম প্রভার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বিএডিসি নাটোর রিজিয়নের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাজ্জাদ হোসেন, উপজেলা আ.লীগের সভাপতি অ্যাড. ওহিদুর রহমান, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান লিখন, শামীমা হক রোজী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) বোরহান উদ্দিন মিঠু, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আল-আমিন সরকার, ইটালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

পলক বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মুজিব কিল্লার কাজ শুরু করেছিলেন, তার অসমাপ্ত কাজ প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা শেষ করছেন। ৬ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে খেলার মাঠ, আশ্রয়কেন্দ্র, ক্লাস করার জায়গা নিয়ে পুরো রাজশাহী বিভাগে প্রথম দুটি মুজিব কিল্লা স্থাপিত হতে যাচ্ছে, দুটিই সিংড়ায়। ৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে চলনবিল উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় বিএডিসির মাধ্যমে সিংড়াতে ফসল সংগ্রহ ও মজুদ কেন্দ্র, এবং মাড়াই কেন্দ্র নির্মাণ করা হচ্ছে, যেটার ধারণক্ষমতা হবে ১ হাজার টন। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের উজাড় করে দিচ্ছেন, তাই আমাদেরও আগামী দিনে তার পাশে থাকতে হবে।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close