reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২৮ নভেম্বর, ২০২২

ইনকিলাব সম্পাদকের বিরুদ্ধে নোমান গ্রুপের মানহানি মামলা

দেশের শীর্ষস্থানীয় রপ্তানিমুখী শিল্পগোষ্ঠী নোমান গ্রুপকে নিয়ে ইনকিলাবে মিথ্যা ও ভুল রিপোর্ট প্রকাশ করায় সম্পাদক এ এম বাহাউদ্দিন এবং প্রতিবেদক সাইদ আহমেদের বিরুদ্ধে ঢাকার সিএমএম আদালতে ২ হাজার কোটি টাকার মানহানি মামলা হয়েছে। বুধবার (২৩ নভেম্বর) নোমান গ্রুপের পক্ষে ঢাকার সিএমএম আদালতের-২৮ নম্বর কোর্টে মামলাটি করেন নোমান গ্রুপের ক্ষমতাপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মুরাদুল ইসলাম।

মামলায় আসামি করা হয়েছে ইনকিলাব সম্পাদক এ এম বাহাউদ্দিন এবং প্রতিবেদক সাঈদ আহমেদকে। ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফিউদ্দিন মামলাটি আমলে নিয়ে প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। আগামী ২১ ডিসেম্বর সমনের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

গত ৩১ অক্টোবর ইনকিলাবের শেষ পৃষ্ঠায় ‘ঋণের নামে হাতিয়েছে ১০ হাজার কোটি টাকা’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়। সংবাদটি প্রকাশ করতে কোনো ধরনের যাচাই-বাছাই বা তদন্ত না করে এবং প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট অমান্য করে এবং সাংবাদিকতার পেশাদারিত্বের বাইরে গিয়ে সম্পূর্ণ অসত্য, মনগড়া, কাল্পনিক, অবাস্তব ও ভিত্তিহীন রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে বলে দাবি করেছে নোমান গ্রুপ। এই নিউজের কারণে দেশে ও বহির্বিশ্বে নোমান গ্রুপ হেয়প্রতিপন্ন হয়েছে এবং দুই হাজার কোটি টাকার আর্থিক ও সুনামের ক্ষতি হয়েছে দাবি করে আসামিদের বিরুদ্ধে পেনাল কোডের ৫০০ ধারায় মানহানি মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাদী পক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার এনায়েত বাতেন রাসেল।

ব্যারিস্টার এনায়েত আরো জানান, নোমান গ্রুপ টেক্সটাইল ও গার্মেন্ট সেক্টরে দেশের শীর্ষস্থানীয় রপ্তানিকারক শিল্প গ্রুপ। প্রতি বছর রপ্তানি খাত থেকে ১ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলার আয় করে জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে। যার কারণে বারবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় রপ্তানি ট্রফি ও রাষ্ট্রপ্রতি শিল্প উন্নয়ন পুরস্কারসহ দেশ-বিদেশে বিভিন্ন সম্মানজনক স্বীকৃতি লাভ করে আসছে নোমান গ্রুপ। ইনকিলাবে প্রকাশিত মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন উদ্দেশ্যে প্রণোদিত প্রতিবেদন প্রকাশ করার কারণে দেশ-বিদেশে নোমান গ্রুপের মানহানি হয়েছে এবং দেশে বর্তমান বিরাজমান পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিক বাজারে ক্রয়াদেশ কমে আসছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close