reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২৮ নভেম্বর, ২০২১

মেয়রের উন্নয়ন ভাবনা

স্বপ্নের শহর গড়তে চাই

চারদিকে গ্রাম আর নদী। সে গ্রামের মধ্যে নতুন একটি আলোকিত অঞ্চল রাজশাহীর বাগমারার তাহেরপুর পৌরসভা। এই পৌরসভাকে পরিষ্কার, পরিচ্ছন্ন ও ডিজিটাল করার স্বপ্ন দেখছি; যা দেখে যেন মনে হয় সাজানো-গোছানো ছোট্ট শহর। পৌরসভার সার্বিক পরিবেশ এলাকার মানুষকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। গ্রামীণ পরিবেশের এই পৌরসভাকে দৃষ্টিনন্দন শহরে রূপান্তর করতে নিরলস কাজ করছি। প্রতিদিনের সংবাদকে এভাবেই উন্নয়ন পরিকল্পনার কথা শুনিয়েছেন বাগমারার তাহিরপুর পৌরসভার মেয়র অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বাগমারা (রাজশাহী) প্রতিনিধি হেলাল উদ্দীন।

তাহেরপুর পৌরসভা ১৯৯৯ সালে স্থাপিত হয়। বর্তমানে এটি প্রথম শ্রেণির পৌরসভা। এই পৌরসভা রাজশাহী শহর থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে ও উপজেলা সদর থেকে ১০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত। জনংখ্যা ৩২১২১। ভোটার ১৬৯৮৬ জন। ওয়ার্ড ৯টি। ৩য় বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ। তার কাজগুলো বাস্তবায়ন হওয়ায় শিক্ষা চিকিৎসা যোগাযোগসহ সবক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। এছাড়া জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে আজাদ জেলার শ্রেষ্ঠ পৌর মেয়র হিসেবে স্বীকৃতিসহ পুরস্কারে ভূষিত হন। তিনি স্কুল জীবন থেকে ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তিনি ১৯৮৭ সালে তাহেরপুর উচ্চবিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, ১৯৯২ সালে তাহেরপুর ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, ১৯৯৫ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় জিয়া হলের ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, ১৯৯৭ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ২০০২ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য, ২০০৩ সালে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহসভাপতি, ২০০৪ সাল থেকে তাহেরপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

মেয়র বলেন, পৌর ভবন, আধুনিক বাস টার্মিনাল, শেখ রাসেল পৌর অডিটোরিয়াম ও পৌর মার্কেট নির্মাণ এবং কলেজ গেটে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল স্থাপন করেছি। এছাড়া ব্যবসায়ীদের জন্য আধুনিক সুপার মার্কেট ও বারইন নদীর তীরে শহর রক্ষা বাঁধ (বেড়িবাঁধ) নির্মাণ, বেসরকারি ব্যাংক স্থাপন, পৌর এলাকার প্রতিটি মসজিদ ও মন্দির আধুনিকরণ, পৌর পার্ক নির্মাণ এবং পৌরসভায় বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ নিশ্চিত করেছি। এছাড়া পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান, পানি নিষ্কাশনের জন্য পৌরসভার প্রয়োজনীয় স্থানে ড্রেন নির্মাণ, তাহেরপুর পৌর আওয়ামী লীগের ডিজিটাল নিজস্ব কার্যালয় নির্মাণ, তাহেরপুর পুলিশ ফাঁড়িকে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে রূপান্তর, আধুনিক পাবলিক টয়লেট নির্মাণ, খেলাধুলার উন্নয়নে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়ন, মাদকের বিষাক্ত ছোবল থেকে যুব সমাজকে রক্ষায় উদ্যোগ নিয়েছি। পৌর এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর অবকাঠামো উন্নয়ন, বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী, স্বামী পরিত্যক্তা ও প্রসূতি ভাতাসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছি।

ভবিষ্যৎ উন্নয়ন পরিকল্পনার বিষয়ে জানতে চাইলে মেয়র আবুল কালাম আজাদ বলেন, তাহেরপুরবাসীর স্বপ্ন শহর রক্ষা বাঁধ সম্প্রসারণ ও বিনোদন উপযোগী হরিতলা মোড়ে দৃষ্টিনন্দন গোল চত্বর নির্মাণ, শিল্পকলা একাডেমি স্থাপন, বহুতল রিভারভিউ সুপার মার্কেট নির্মাণ, পৌরসভাকে সম্পূর্ণ সি সি ক্যামারার আওতায় আনা, পাবলিক লাইব্রেরি স্থাপন করা হবে। এছাড়া খেলাধুলার উন্নয়নে আধুনিক স্টেডিয়াম, পুরাতন খেয়াঘাটে ব্রিজ, আধুনিক যাত্রী ছাউনি, শিশু পার্ক নির্মাণ করা হবে। পাশাপাশি শিক্ষিত যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি, এলাকা রাস্তাঘাট সংস্কার ও কাঁচা রাস্তা পাকাকরণ ও আরসিসি রাস্তা নির্মাণ, গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা নিশ্চিতকরণসহ তাদের বৃত্তি প্রদান, সড়ক বাতির পরিমাণ বৃদ্ধি করে পৌর এলাকাকে আলোকিতকরণ, দুস্থ মহিলাদের প্রশিক্ষণ ও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিশেষ সুবিধা প্রদান, সাহিত্য ও সংস্কৃতির উন্নয়ন সাধন, তাহেরপুর হাইস্কুল সংলগ্ন পুকুরের সৌন্দর্যবর্ধন, আধুনিক হাসপাতাল নির্মাণের মাধ্যমে তাহেরপুর পৌরসভাকে রাজশাহী বিভাগের শ্রেষ্ঠ পৌরসভা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে চাই। আমার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় তাহেরপুর পৌরসভাকে দৃষ্টিনন্দন করে সাজানোর চেষ্টা করেছি।

আগামীকাল পড়ুন

মোংলা পৌর মেয়রের কথা

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close