জিয়াউদ্দিন রাজু

  ০১ মার্চ, ২০২১

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ

থানা-ওয়ার্ডের কাজ পুরোনোদের দিয়েই

মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক দিয়েই চলছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের থানা এবং ওয়ার্ডগুলো। পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ায় কয়েকটি থানা এবং ওয়ার্ডে যোগ্যতা অনুযায়ী পদ পাচ্ছেন না অনেকে। দলের পরিচয় দিয়ে তারা কাজকর্ম করছেন ঠিকই, কিন্তু পদের পরিচয় দিতে পারছেন না তারা। তবে কেন্দ্রীয় ও মহানগর আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা বলেন, দ্রুত কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠনের মাধ্যমে ঢাকা নগরে সংগঠনকে ঢেলে সাজানোর কাজ শুরু হবে।

দীর্ঘদিন পর গত বুধবার বিশেষ বর্ধিত সভা করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। সভায় মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের নেতাদের পাশাপাশি থানা এবং ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় আগামী তিন মাসের মধ্যে মহল্লাগুলোতে কমিটি গঠনের কাজ শুরু করার নির্দেশ দেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

------
দলীয় সূত্রে জানা যায়, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক ওয়ার্ড ৭৫টি এবং থানা ২৪টি। এগুলোর মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি আছে মাত্র ২৮টি ওয়ার্ডে এবং ১৩টি থানায়। কোনো কোনো থানার নেতা মহানগর কমিটিতে চলে আসায় সেসব পদ শূন্য হয়ে পড়েছে। প্রথমে ডেমরা থানা এবং পরে যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি হন কাজী মনিরুল ইসলাম মনু। কিন্তু গত ১৩ বছরেও কমিটি পূর্ণাঙ্গ করতে পারেননি তিনি। ওই থানার ওয়ার্ড কমিটিগুলোরও এক যুগ পার হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে কাজী মনিরুল ইসলাম মনু প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, ‘কেন পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়নি, তা আমার জানা নেই। এর আগের মহানগরের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার কথা দিয়েও করতে পারেননি। তবে এবার মহানগরের নতুন নেতৃত্ব এসেছে, আশা করছি এবার কমিটিগুলো হবে।’

যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের এক নেতা বলেন, ‘আমার যদি জবাবদিহি না থাকে আমি কাউকে মানব না। আর আমার যদি জবাবদিহি থাকে, তাহলেই আমি মানব। ওয়ার্ড কমিটিগুলোর কোনো জবাবদিহি নেই। তারা কবে সভাপতি-সেক্রেটারি হয়েছে, তারা নিজেরাও ভুলে গেছেন।’

৫ বছর আগে কমিটি হলেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়নি মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের। ওই থানা আওয়ামী লীগের এক নেতা বলেন, ‘থানার পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার কথা ছিল সংশ্লিষ্ট থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের। কিন্তু এর দায়িত্ব মহানগর আওয়ামী লীগ নিয়েছিল। তারা আমাদের বলেছিল আলাপ-আলোচনা করেই কমিটিগুলো করা হবে। কিন্তু সে কমিটি ৫ বছরেও হয়নি।’

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মান্নাফী প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, ‘আমরা খুব দ্রুত এসব কমিটি করার জন্য কাজ শুরু করব। মহল্লায় মহল্লায় কমিটি গঠনের পরই ওয়ার্ড ও থানার সম্মেলন শুরু হবে। এজন্য কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি করা হবে, তারপর ওয়ার্ড, এরপর থানা সম্মেলন। এগুলো প্রতিটিই খোলাখুলিভাবে হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘এজন্য আমরা আরেকটি কার্যনির্বাহী সভা করব। সেখানে থানা-ওয়ার্ডগুলোর কমিটি দেখার জন্য টিম তৈরি করা হবে। তারা আবার ইউনিট কমিটিগুলো মনিটরিং করবে। আমরাও চাই ভালো কমিটি হোক। সেই চেষ্টাই আমরা করছি।’

এদিকে থানা এবং ওয়ার্ড কমিটির বিষয়ে আজ সোমবার ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ একটি সভার করবে। সভায় মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের নেতাদের পাশাপশি দলটির থানা ও ওয়ার্ডে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকরা উপস্থিত থাকবেন। সভায় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতারা কমিটি করার বিষয়ে নির্দেশনা দেবেন বলে জানা গেছে।

 

"

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close