অনাথ শিশুদের শিক্ষা বন্ধ

প্রকাশ : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

করোনা মহামারির কারণে বিশ্বজুড়ে গরিব লাখ লাখ শিশুকে পরিবারের খরচ জোগাতে লেখাপড়া ছেড়ে কাজে নামতে হয়েছে, বেড়েছে শিশুশ্রম। সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে দীর্ঘদিন ধরে স্কুল বন্ধ থাকায় ওইসব শিশুরা হয়তো চিরদিনের জন্য ঝরে পড়বে।

মহামারির মধ্যে দরিদ্র এসব শিশুর দিন কীভাবে কাটছে তা নিয়ে ‘দ্য নিউইয়র্ক টাইমস’ একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়, মহামারির মধ্যে স্কুল বন্ধ, পরিবারের আয়ও কমে গেছে। তাই অনেক শিশুই ইট ভাটায় বা নির্মাণশ্রমিক হিসেবে কাজ করতে বাধ্য হচ্ছে। সেখানে তাদের প্রাপ্তবয়স্ক শ্রমিকদের মতো ভারী ওজনের মালপত্র বয়ে নিয়ে যাওয়ার মতো স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করতে হচ্ছে।

জাতিসংঘের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, মহামারির কারণে বিশ্বজুড়ে প্রায় ২ কোটি ৪০ লাখ শিশু স্কুলে থেকে ঝরে যাবে। মহামারিতে বিশ্বের বেশির ভাগ দেশে স্কুল বন্ধ রয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে স্কুলগামী প্রায় ১০০ কোটি শিশুর ওপর। তাদের অনেকেই বাড়িতে অনলাইনে ক্লাস করার সুযোগ পাচ্ছে না। কারণ তাদের বাড়িতে স্মার্টফোন, কম্পিউটার বা ইন্টারনেট নেই। কারো কারো বাড়িতে পড়া দেখিয়ে দেওয়ার মতো কেউ নেই।

কয়েক দশক ধরে বিশ্বজুড়ে বিশেষ করে এশিয়ার দেশগুলোতে দারিদ্র্য কমতে শুরু করেছিল। যার ফলে বেশির ভাগ শিশু স্কুলে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছিল। সরকার থেকেও শিশুদের স্কুলে যাওয়া নিশ্চিত করতে পরিবারকে আর্থিক সহায়তা এবং স্কুলে শিশুদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করার মতো নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কোভিড-১৯ মহামারির ধাক্কায় দেশগুলোর অর্থনীতি সংকুচিত হয়ে পড়েছে। তাদের উন্নয়নের গতি হ্রাস পেয়েছে বা পিছিয়ে গেছে।

 

 

"