আগস্ট মাস এলেই জাতি আতংকিত হতে থাকে : নানক

প্রকাশ : ০৫ আগস্ট ২০২০, ১৯:২৮

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, আগস্ট মাস এলেই জাতি আতংকিত হতে থাকে। এই আগস্ট মাসেই আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে যত ষড়যন্ত্র হয়েছে। তিনি বলেন, একটি দল জনগণের কাছে স্থান হারিয়ে ষড়যন্ত্রের পথে হাটছে।

মঙ্গলবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র ক্রীড়া সংগঠক বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকীতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাহাঙ্গীর কবির নানক শহীদ শেখ কামালের বহুমূখী প্রতিভা স্মরণের পাশাপাশি করোনা মহামারিতে জনগণের প্রতি দলীয় নেতাকর্মীদের ভূমিকার কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে করোনাকালীন সময়ে শেখ হাসিনা নির্দেশে দলের নেতা-কর্মীরা কাজ করে যাচ্ছে।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যা করে ক্ষান্ত হয়নি তারা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, এই আগস্ট মাসেই নেত্রীর উপর গ্রেনেড হামলা, সারা দেশে সিরিজ বোমা হামলা চালিয়েছিলো তারা। এসময় তিনি মহানগর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের চোখ কান খোলা রাখার আহ্বান জানান। 

সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম. বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রী পরিষদের অনেক নেতাই বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর খুনি মোস্তাকের মন্ত্রী পরিষদের সদস্য হয়েছিলেন। এদের মধ্যে কেউ ষড়যন্ত্রে, কেউ সাহস ও দৃঢ়তার অভাবে, কেউ লোভে বা কেউ ক্ষোভে। এর প্রতিদান একদিন তারা পাবেই। ষড়যন্ত্রকারীরা ষড়যন্ত্র করে কোনদিন টিকতে পারেনি আর ভবিষ্যতেও পারবে না। দলের ভেতর ষড়যন্ত্র করলে কেউ পার পাবে না। আমরা এর জবাব দিতে প্রস্তুত আছি। তিনি আরও বলেন, যতবারই ষড়যন্ত্র হয়েছে, জননেত্রী শেখ হাসিনা তা সাহসিকতার সাথে মোকাবেলা  করেছেন। আপনাদের মনে আছে ১/১১ তে যারা ষড়যন্ত্র করেছিলো, তারা অনেকেই রাজনীতি থেকে ছিটকে পড়েছে। 

সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফী বলেন, শেখ কামাল দেশের রাষ্ট্র প্রধানের ছেলে হওয়া স্বত্বেও অত্যন্ত সাদাসিধে জীবনযাপন করতেন। সকল শ্রেণি পেশার মানুষের সাথে মিশতেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি যুদ্ধে না গেলেও পারতেন। কিন্তু প্রচন্ড দেশপ্রেম ও দায়িত্ববোধ থেকে তিনি শুধুমাত্র স্বশরীরে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণই করেন নি, বরং মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম একজন সংগঠকও ছিলেন।

সভা পরিচালনাকালে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির শহীদ শেখ কামালের সাথে তার ঘনিষ্ঠতার স্মৃতিচারণ করেন। তিনি বলেন, আবাহনি ক্লাবের মাধ্যমে শহীদ শেখ কামাল বাংলাদেশে আধুনিক ফুটবলের প্রচলন করেন। তিনি স্পন্দন শিল্পগোষ্ঠী প্রতিষ্ঠা করে দেশে আধুনিক সাংস্কৃতির সূচনা করেন। 

এরপর পবিত্র কোরআান থেকে তিলাওয়াত ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাসহ সকলের সুস্থতা কামনা করে মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। 

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির সভা পরিচালনা করেন।

পিডিএসও/এসএম শামীম