ব্রেকিং নিউজ

শিক্ষক নিয়োগে প্রাথমিকের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় বিজ্ঞপ্তি

প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর ২০২০, ১৯:১৩

অনলাইন ডেস্ক

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩২ হাজার ৫৭৭ জন সহকারী শিক্ষকের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হবে মঙ্গলবার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন।

তিনি বলেন, ‘প্রাক প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নেওয়া হবে ২৫ হাজার ৬৩০ জন এবং প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে ৬ হাজার ৯৪৭ জন। কাল মঙ্গলবার প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই) এই নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে।

জানা যায়, প্রাথমিকের ইতিহাসে এটাই হচ্ছে সবচেয়ে বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি। সৃষ্ট পদ এবং শূন্য পদ মিলিয়ে ৩২ হাজার ৫৭৭ জন সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। নতুন নিয়োগ নীতিমালা অনুযায়ী এবারই প্রথমবারের মতো স্নাতক পাস ছাড়া আবেদন করতে পারবে না নারী প্রার্থীরা। পুরুষ প্রার্থীদের আবেদনের যোগ্যতা আগের মতোই স্নাতক পাস থাকছে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র জানায়, বর্তমানে দেশে ৬৫ হাজার ৬২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। সর্বশেষ ২০১৮ সালে ১৮ হাজার ১৪৭ জন সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়। নতুন নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা পাওয়ার পর প্রতিটি উপজেলা থেকে শূন্য পদের তালিকা নেওয়া হয়েছে। সে অনুসারেই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হচ্ছে।

জানা যায়, ২০১৮ সালের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় মৌখিক পরীক্ষা দেন প্রায় ৫৫ হাজার প্রার্থী। তাদের মধ্য থেকে ১৮ হাজার ১৪৭ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়। চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ না হওয়া ৩৭ হাজার প্রার্থী প্যানেলের মাধ্যমে তাদের নিয়োগের দাবিতে এখনও রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আন্দোলন করছেন। তবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, প্যানেল করার কোনো সুযোগ নেই। এমনকি ২০১৮ সালের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতেও কোথোয়ও প্যানেলের উল্লেখ ছিল না। 

সম্প্রতি প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা এক বছরের বদলে দুই বছর করার অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। অর্থাৎ প্রাথমিকে আরেকটি শ্রেণি বাড়ছে। আগামী বছর থেকেই এর পাইলটিং শুরু হবে। ২০২৩ সাল থেকে সব বিদ্যালয়ে দুই বছর মেয়াদি প্রাক প্রাথমিক চালু করা হবে। তখন ৬৫ হাজার ৬২০ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আরো একজন করে সহকারি শিক্ষক ও একজন করে আয়া নিয়োগ করা হবে।

এ ছাড়া সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষকের পদ সৃষ্টির প্রস্তাব জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। সহকারি শিক্ষকদের মধ্য থেকেই এই পদে পদোন্নতি দেওয়া হবে। এতে প্রতিটি বিদ্যালয়ে একজন করে ৬৫ হাজার ৬২০ জন সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য হবে। ফলে প্রাথমিকে আগামীতেও আরো বড় বড় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আসছে।