প্রতিদিন গোসল করলে যেসব উপকার পাবেন

প্রকাশ : ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১৬:৩৬

অনলাইন ডেস্ক

এখন আবহাওয়া অনেকটা ঠান্ডা। এ কারণে অনেকেই প্রতিদিন গোসল করতে চান না। কিন্তু এই সময় প্রতিদিন গোসল করলে যেসব উপকার পাবেন। 

গরম পানি নাকি ঠান্ডা পানি

ঠান্ডা পানিতে গোসল করবেন নাকি গরম পানিতে সেই সিদ্ধান্ত পুরোপুরি আপনার। তবে যদি ঠান্ডা লাগার ধাত থাকে তাহলে গরম পানিতেই গোসল করুন। নইলে সর্দি বসে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়াও যাদের পায়ে ব্যথা, ঘাড়ে ব্যথা এসব রয়েছে তারা অবশ্যই সারা বছর হালকা গরম পানিতে গোসল করবেন। তবে যাদের হাঁপানির সমস্যা থাকে তাদের ঠান্ডা পানিতে গোসল করার পরামর্শ দেওয়া হয়। সবসময় চিকিৎসকের পরামর্শকেই প্রাধান্য দেবেন।

ক্যালোরি ঝরে

ইষদুষ্ণ গরম পানিতে সপ্তাহে তিনদিন যদি এসেনশিয়ল কোনও অয়েল মিশিয়ে গোসল করেন তাহলে ক্যালোরিও কমবে। যে কারণে জিমে স্টিম বাথের ব্যবস্থা থাকে। তবে শরীর যদি একদম সুস্থ থাকে তাহলে প্রতিদিন গরম পানিতে গোসল এড়িয়ে চলুন। সপ্তাহে তিনদিন ঠিক আছে। সেই সঙ্গে স্পঞ্জও করে নিতে পারেন। এতে শরীর ভালো থাকবে। তবে পানি যেন খুব বেশি গরম না হয়।

ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে

সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যদি হট বাথ নেওয়া যায় তাহলে ব্লাড সুগারও নিয়ন্ত্রণে থাকে। শরীরে রক্ত সঞ্চালন ভালো হয়। কর্মক্ষমতা বাড়ে। এছাড়াও প্রতিটি কোষ খুব ভালো কাজ করে। শরীরের অন্য অঙ্গ প্রত্যঙ্গও সচল থাকে।

ভালো ঘুমের জন্য

ভালো চিন্তামুক্ত ঘুমের জন্য প্রতিদিন গোসল করা জরুরি। গোসল করলে স্নায়ু শিথিল থাকে। ঠান্ডা লাগার মতো সমস্যা না থাকলে রাতেও ঘুমাতে যাওয়ার আগে গোসল করুন। শীতকাল হলে গরম পানিতে গোসল করে ঘুমান। এতে ঘুম ভালো আসবে। ঘুমের সময় দেহকে ছন্দে ফেরানো খুব জরুরি। আর তাই চিন্তা মুক্ত থাকতেই হবে।

ত্বকের মুখ খুলে দেয়

সারাদিন আমরা তেল, সাবান মাখি। তাতে ত্বকের রোমকূপ বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়াও দূষণের ফলেও রোমকূপ বন্ধ হয়ে যায়য়। যদি তেল মেখে গোসল করা যায় তাহলে ত্বক নরম থাকে। ত্বকের মরা কোশ দূর হয়। শরীর চাঙ্গা লাগে। অন্য রকম সমস্যা কাছে আসতে দেয় না। সর্বোপরি দেখতে সুন্দর লাগে। টক্সিন বেরিয়ে যাওয়ায় ঘাম কম হয়।

সাইনাসের ব্যথা থাকলে

সাইনাসের সমস্যায় ভুগছেন? তাহলে প্রতিদিন একটা হাঁড়িতে পানি ফুটতে দিয়ে ভেপার নেওয়ার অভ্যাস করুন। এছাড়াও প্রতিদিন রাতে শোয়ার আগে ইষদুষ্ণ গরম পানিতে গোসল করুন। তাহলে শরীর ফুরফুরে থাকবে। মাথা ব্যথার সমস্যাও থাকবে না। সূত্র: এই সময়

পিডিএসও/ জিজাক