reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২৩ জানুয়ারি, ২০২৩

অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট

সাংবাদিক রোজিনার বিরুদ্ধে মামলা অধিকতর তদন্তের নির্দেশ

দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলাম। ছবি : সংগৃহীত

দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে ‘অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট’ আইনের মামলায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

রোজিনাকে অব্যাহতি দিয়ে গোয়েন্দা পুলিশ এ মামলায় যে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছিল, তাতে আপত্তি জানিয়ে বাদীর নারাজি আবেদনের শুনানি করে ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন সোমবার (২৩ জানুয়ারি) অধিকতর তদন্তের এই আদেশ দিলেন।

আদালত পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক নিজাম উদ্দিন জানান, মামলার বাদী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উপসচিব শিব্বির আহমেদ ওসমানী গত ১৫ জানুয়রি যে ‘নারাজি’ আবেদন করেছিলেন, তার শুনানির দিন ছিল সোমবার।

“শুনানিতে বাদীর বক্তব্য শুনে তার নারাজি আবেদন মঞ্জুর করে আদালত। পাশাপাশি মামলা তদন্ত করে পিবিআইকে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেন বিচারক।”

বাদীর আইনজীবী বদরুল ইসলাম নারাজি আবেদেনের পক্ষে শুনানি করেন। এর বিরোধিতা করেন রোজিনার আইনজীবী প্রশান্ত কর্মকার।

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন ।

মামলার বাদী শিব্বির আহমেদ ওসমানী বলেন, ‘আমরা চূড়ান্ত প্রতিবেদনের বক্তব্যে অসন্তুষ্ট। ফৌজদারি কার্যবিধির সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলাটির পুনঃতদন্ত বা অধিকতর তদন্ত হলে রোজিনা ইসলামকে অব্যাহতি দেওয়া যাবে না।’

রোজিনাকে এ মামলার দায় থেকে অব্যাহতি দেওয়ার সুপারিশ রেখে গত ১১ অক্টোবর হাকিম আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেন তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মোর্শেদ আলম খান।

আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগের ‘সত্যতা’ পাওয়া যায়নি বলে প্রতিবেদনে তিনি আদালতকে জানান।

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ২০২১ সালের ১৭ মে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গেলে স্বাস্থ্য সচিবের পিএস সাইফুল ইসলামের কক্ষে তাকে আটকে রাখে কর্মচারীরা। তারা অভিযোগ করেন, ওই কক্ষ থেকে সরকারি নথি সরানোর চেষ্টা করেছিলেন তিনি। কয়েক ঘণ্টা ওই কক্ষে আটকে রাখার পর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন রোজিনা। পরে এই সাংবাদিক তাকে নির্যাতনের অভিযোগও করেছিলেন।

সেই রাতে রোজিনাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তাকে নিয়ে যাওয়া হয় শাহবাগ থানায়। ছয় দিন পর জামিনে মুক্তি পান রোজিনা।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
সাংবাদিক রোজিনা,মামলা,অধিকতর তদন্তের নির্দেশ
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close