reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১

অস্ত্র মামলায় স্বাস্থ্যের মালেকের ১৫ বছরের সাজা

অস্ত্র আইনের মামলায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গাড়িচালক আব্দুল মালেককে ১৫ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক রবিউল আলম মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করেন।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে মামলাটির রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন ধার্য করেছিলেন আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সালাউদ্দিন হাওলাদার জানিয়েছেন, দুটি ধারায় মালেককে ১৫ বছর করে সাজা দেওয়া হয়েছে। তবে দুটি সাজাই একসঙ্গে চলবে।

এর আগে চলতি বছরের ১১ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক মেহেদী হাসান চৌধুরী মালেককে একমাত্র আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। এরপর গত ১১ মার্চ আব্দুল মালেকের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলায় অভিযোগ গঠন করেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কে এম ইমরুল কায়েশ।

২০২০ সালের ২০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর তুরাগ থানার কামারপাড়ার ৪২ নম্বর বামনেরটেক হাজি কমপ্লেক্সের তৃতীয় তলার বাসা থেকে আব্দুল মালেককে গ্রেপ্তার করা হয়।

ওই অভিযানে একটি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, পাঁচ রাউন্ড গুলি ও এক লাখ ৫০ হাজার জাল টাকা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ওইদিনই তুরাগ থানায় র‌্যাব-১-এর পরিদর্শক আলমগীর হোসেন অস্ত্র আইনে মামলা করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ড্রাইভার আব্দুল মালেক ওরফে বাদল ডিজির গাড়ির ড্রাইভার। এছাড়া বাংলাদেশ সরকারি গাড়ি চালক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মচারী সমিতির সভাপতি হিসেবে প্রায় ২০-২৫ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। কর্মস্থলে খুবই প্রভাবশালী তিনি। দীর্ঘদিন জাল টাকার ব্যবসাসহ নিজ কর্মস্থলে সাংগঠনিক পদবি কাজে লাগিয়ে বদলি ও নিয়োগ বাণিজ্য করে অবৈধভাবে বিপুল পরিমাণ অর্থের মালিক হন।

পিডিএসও/জিএম/হেলাল

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
অস্ত্র মামলা,আদালত,গাড়িচালক আব্দুল মালেক
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close