reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ১৯ নভেম্বর, ২০২২

ইরানে আয়াতুল্লাহ খোমেনির বাড়িতে বিক্ষোভকারীদের আগুন

ইরানে ইসলামি প্রজাতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনির পৈতৃক বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা ভিডিও ও ছবিতে দেখা গেছে, খোমেইন শহরে আয়াতুল্লাহ খোমেনির বাড়িতে সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা আগুন ধরিয়ে দিচ্ছেন। ভিডিওগুলো কোথায় ধারণ করা হয়েছে, তা আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থাগুলো যাচাই করেছে, তবে আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষ অগ্নিসংযোগের ঘটনা অস্বীকার করেছে। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি শনিবার (১৯ নভেম্বর) এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে।

বিবিসি বলেছে, আয়াতুল্লাহ খোমেনি এই বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন বলে জানা গেছে। তাঁর স্মরণে বাড়ি বর্তমানে ‘জাদুঘর’ হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছিল। খোমেনি ১৯৭৯ সালে ইরানের ইসলামি বিপ্লবের নেতা ছিলেন। তিনি ইরানের পশ্চিমাপন্থী নেতা শাহ মোহাম্মদ রেজা পাহলভিকে ক্ষমতাচ্যুত করে ইসলামি প্রজাতন্ত্র রাষ্ট্রের সূচনা করেছিলেন, যা এখনো দেশটিতে বিদ্যমান। খোমেনি ১৯৮৯ সালে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত ইরানের প্রথম সর্বোচ্চ নেতা হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, অসংখ্য বিক্ষোভকারী খোমেনির বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করতে করতে উল্লাস করছেন। ইরানের একটি অ্যাকটিভিস্ট নেটওয়ার্ক জানিয়েছে, অগ্নিসংযোগের ফুটেজটি স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ধারণ করা।

তবে খোমেইন কাউন্টির প্রেস অফিস দাবি করেছে, সেখানে কোনো অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেনি। অন্যদিকে আধা সরকারি সংবাদ সংস্থা তাসনিম জানিয়েছে, গুটি কয়েক লোক বাড়িটির বাইরে জড়ো হয়েছিলেন। পরে তাঁরা বাড়িটির একটি ভিডিও পোস্ট করেন। আয়াতুল্লাহ খোমেনির বাড়িটি সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্তই ছিল।

ইরানে প্রায় তিন মাস আগে হিজাব ইস্যুকে কেন্দ্র করে শুরু হওয়া বিক্ষোভ, যা এখনো অব্যাহত রয়েছে। খোমেনির পৈতৃক বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করার ঘটনা এই চলমান বিক্ষোভের সর্বশেষ ঘটনাগুলোর একটি। ২২ বছর বয়সী কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির পুলিশি হেফাজতে মৃত্যুর পর বেশব্যাপী এই বিক্ষোভ শুরু হয়।

ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিরাপত্তা বাহিনীর পাঁচ সদস্য নিহত হয়েছেন।

এদিকে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় ইজেহ শহরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ৯ বছর বয়সী কিয়ান পিরফালাক নামের এক শিশু নিহত হয়েছে। শুক্রবার তার শেষকৃত্য থেকে নতুন করে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
মাহশা আমিনি,খোমেইন শহর,আয়াতুল্লাহ খোমেনি
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close