reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ১৮ মে, ২০২২

মারিউপোলের বাংকারে থাকা ৯৫৯ ইউক্রেনীয় সেনার আত্মসমর্পণ

আত্মসমর্পণকারী ইউক্রেনীয় সেনা। ছবি : সংগৃহীত।

ইউক্রেনের মারিউপোল শহরের আজভস্তাল ইস্পাত কারখানার নিচে বাংকার ও টানেল থেকে ৮০ জন আহতসহ মোট ৯৫৯ ইউক্রেনীয় সেনা আত্মসমর্পণ করেছেন।

বুধবার (১৮ মে) রাশিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়, গত সোমবার থেকে ইউক্রেনীয় সেনারা আত্মসমর্পণ করতে শুরু করেন। খবর রয়টার্স ও এএফপি।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ইউক্রেনের আজভ রেজিমেন্টের সদস্যসহ ৬৯৪ সেনা আত্মসমর্পণ করেছেন। তাদের মধ্যে ২৯ জন আহত সেনা রয়েছেন।

কয়েক সপ্তাহের মরিয়া প্রতিরোধের পর গতকাল মঙ্গলবার মারিউপোলের আজভস্তাল ইস্পাত কারখানার ২৫০ জনের বেশি ইউক্রেনীয় সেনা রুশ বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করার কথা জানায় রাশিয়া। গত সোমবার এই সেনারা আত্মসমর্পণ করেন। অবশ্য বুধবার আত্মসমর্পণ করা ইউক্রেনীয় সেনাদের ভাগ্য নিয়ে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ে।

রয়টার্স জানায়, এ আত্মসমর্পণের মাধ্যমে ইউক্রেন যুদ্ধে রাশিয়ার সবচেয়ে ধ্বংসাত্মক অবরোধের ইতি ঘটল। এর মধ্য দিয়ে হোঁচট খাওয়া এই সামরিক অভিযানে বিরল বিজয় দাবির সুযোগ পেলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

মস্কোর দাবি, তাদের হামলায় ২৭০ জন জাতীয়তাবাদী নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া তাদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

গত সোমবার দিনের শেষ দিকে রুশ সাঁজোয়া যানের পাহারায় একটি বাসের বহর আজভস্তাল ইস্পাত কারখানা ছেড়ে যায়। পাঁচটি বাস রুশ–নিয়ন্ত্রিত শহর নভোয়াজভস্কে পৌঁছায়। আহত যোদ্ধাদের সেখানে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে রাশিয়া। ইউক্রেনের আজভস্তাল গ্যারিসনের সেনাদের বহনকারী আরও সাতটি বাস দোনেৎস্কের কাছে রুশ–নিয়ন্ত্রিত ওলেনিভকা শহরে একটি কারাগারে পৌঁছায় বলে রয়টার্সের এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন।

দুই পক্ষই বলেছে, একটি চুক্তির অধীনে সব ইউক্রেনীয় ইস্পাত কারখানা ছেড়ে যাবে। তবে চুক্তির অনেক কিছুই প্রকাশ করা হয়নি। এমনকি কত সেনা সেখানে অবস্থান করছেন, সে বিষয়েও কিছু জানা যায়নি। বন্দী বিনিময়ের বিষয়ে কোনো ধরনের সমঝোতা হয়েছে কি না, সেটাও বলা হয়নি।

এদিকে, ক্রেমলিন বলেছে, আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী এসব বন্দীর সঙ্গে আচরণ করার বিষয়ে ব্যক্তিগতভাবে নিশ্চয়তা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট পুতিন।

ইউক্রেনের কর্মকর্তারা বলছেন, রুশ বন্দীদের বিনিময়ে তাদের ছাড়িয়ে আনা হবে।

ইউক্রেনের উপপ্রধানমন্ত্রী ইরিনা ভেরেশ্চুক বলেছেন, আহত সেনাদের অবস্থা স্থিতিশীল হলে বন্দী বিনিময়ের ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগ নেবে কিয়েভ।

রাশিয়া ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারের অভিযোগ এনেছে। এক বিবৃতিতে মস্কো বলেছে, মারিউপোলে আত্মসমর্পণ করা যোদ্ধাদের রুশ বাহিনীর হাতে হস্তান্তর করাকে ইউক্রেনের পক্ষে উদ্ধার হিসেবে তুলে ধরছেন জেলেনস্কি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা স্পুতনিক রেডিওকে বলেছেন, কিয়েভের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, মানবাধিকার কর্মসূচির অধীনে এসব সেনাকে উদ্ধার করা হয়েছে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। ইস্পাত কারখানা থেকে তাদের বের করার পরিকল্পনা ছিল রাশিয়ার। এ কথা তারা স্বীকার করছে না।

এদিকে রাশিয়ার পক্ষ থেকে গতকাল ইউক্রেনে তাদের বিশেষ সামরিক অভিযানের সর্বশেষ হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। দোনেৎস্ক অঞ্চলের সোলেডার এলাকায় ওই হামলা চালানো হয়। এ ছাড়া ইউক্রেনের ভাড়াটে সেনাদের ওপরেও হামলা করেছে রুশ বাহিনী।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
মারিউপোল,ইউক্রেনীয় সেনা,আত্মসমর্পণ
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close