reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ১০ মে, ২০২২

জালিয়াতি করে পাস করা মার্কোসই ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট

ছবি : ইন্টারনেট

ফিলিপাইনে দুই-তৃতীয়াংশ ভোট পেয়ে নিরঙ্কুশ জয় লাভ করতে যাচ্ছেন স্বৈরশাসকের ছেলে ফার্দিনান্দ মার্কোস জুনিয়র।

ডয়েচে ভেলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এক অনানুষ্ঠানিক গণনার ফলাফলে দেখা গেছে,

১০ জন প্রার্থী ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলেও মার্কোসের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী লেনি রব্রিদোর থেকে প্রায় দ্বিগুন ভোট পেয়েছেন। মার্কোস পেয়েছেন ২ কোটি ১৭ লাখ ভোট এবং লেনি রব্রিদো পেয়েছেন ১ কোটি ৩ লাখ ভোট।

২০১৬ সালে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে এই লেনি রব্রিদোর কাছেই হেরেছিলেন মার্কোস।

নির্বাচনী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দক্ষিণ ফিলিপাইনে দুই একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবেই অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নির্বাচনি প্রচারণায় তিনি নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে বেকারত্ব কমিয়ে আনা ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী লেনি রব্রিদো, যিনি দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। তার প্রতিশ্রুতি ছিল, দেশটির গণতন্ত্রের স্বার্থে আরও জবাবদিহিমূলক ও স্বচ্ছ সরকার প্রতিষ্ঠা করার।

ফিলিপিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানী আরিয়েস আরুগে আল জাজিরাকে বলেছিলেন, ‘এই নির্বাচন মূলত ভালো ও খারাপের প্রচারণা। এটি স্পষ্ট যে দুতার্তে ছিলেন রাজতান্ত্রিক, স্বৈরাচার ও দায়মুক্তির প্রতিনিধি, সেখানে রব্রিদ্রো প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন এর বিপরীত: সততা, দায়বদ্ধতা ও গণতন্ত্র।’

ফার্দিনান্দ মার্কোস জুনিয়র। যিনি ‘বংবং’ নামে পরিচিত। তার বাবা ফার্দিনান্দ মার্কোস সিনিয়র ফিলিপাইনের সাবেক স্বৈরশাসক। ১৯৮৬ সালে মার্কোস সিনিয়রকে গণ-অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়।

৬৪ বছর বয়সী মার্কোস পড়াশোনা করেছেন ইংল্যান্ডের সাক্সেসের প্রাইভেট ওর্থ স্কুলে। তার অফিশিয়াল বায়োগ্রাফিতে তিনি নিজেকে একজন অক্সফোর্ড গ্র্যাজুয়েট দাবি করলেও ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি নিশ্চিত করেছে, তিনি কেবল ১৯৭৮ সালে সোশ্যাল স্টাডিজে ডিপ্লোমা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তিনি তার পড়াশোনা শেষ করেননি। বিশ্ববিদ্যালয়টির পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে, এই ডিপ্লোমা কখনই গ্র্যাজুয়েশনের ডিগ্রির সমতুল্য নয়।

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির সাবেক ফিলিপিনো ছাত্রদের সংগঠন অক্সফোর্ড ফিলিপিন্স সোসাইটিও জানিয়েছিল, মার্কোসের অক্সফোর্ড গ্র্যাজুয়েশনের দাবি সত্য নয়। এমনকি সংগঠনটি একজন হেভিওয়েট প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীর মিথ্যা দাবিতে উদ্বেগও জানিয়েছিল।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
ফার্দিনান্দ মার্কোস জুনিয়র,ফিলিপাইন,ডিগ্রি জালিয়াত,প্রেসিডেন্ট
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close