reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ১১ অক্টোবর, ২০২১

গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠায় ইরাকে আগাম ভোট

গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠায় সাধারণ নির্বাচনে ভোটারধিকার প্রয়োগ করছেন ইরাকিরা। ২০১৯ সালের গণবিক্ষোভের পর রবিবার (১০ অক্টোবর) স্থানীয় সময় সকাল ৭টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি কম। খবর আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসি ও রয়টার্সের।

সংবাদমাধ্যম জানায়, আগামী বছর দেশটির পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও দুই বছর আগে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে শত শত মানুষের প্রাণহানির কারণে ছয় মাস এগিয়ে নির্বাচন ঘোষণা করে।

নির্বাচনে দলীয় তালিকাভিত্তিক পুরোনো নির্বাচনী ব্যবস্থায় স্বতন্ত্র প্রার্থীদের সাহায্য করার জন্য পরিবর্তন আনা হয়েছে। যদিও দেশটির প্রধান শিয়া মুসলিম রাজনৈতিক গোষ্ঠী এই নির্বাচনী সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে জয় পেতে পারে বলে পূর্বাভাস ।

জানা যায়, ২০০৩ সালে মার্কিন-নেতৃত্বাধীন সামরিক বাহিনীর ইরাক আক্রমণের পর থেকে দেশটির পার্লামেন্টে শিয়া মুসলিমদের আধিপত্য রয়েছে। মার্কিন হামলায় দেশটির তৎকালীন ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হুসেইন নেতৃত্বাধীন সরকারের পতন হয়। ২০১৯ সালে দেশটির ক্ষমতাসীন অভিজাত শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে ব্যাপক আন্দোলন হলেও এবারের নির্বাচনে তারাই জয়ী হতে পারে বলে ধারণা জনমনে ধারণা।

কূটনীতিক ও বিশ্লেষকদের ধারণা, ইরাকের আগাম এই নির্বাচনে মধ্যপ্রাচ্য কিংবা দেশটির অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে তেমন কোনও পরিবর্তন আনতে পারবে না।

বিবিসি সূত্রে জানায়, রাজধানী বাগদাদের সদর সিটির একটি মেয়েদের স্কুলে ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। এই কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি কম দেখা গেছে।

প্রসঙ্গত, দেশটির নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, পার্লামেন্টের ৩২৯ আসনের বিপরীতে ১৬৭টি রাজনৈতিক দলের ৩ হাজার ২০০ জনেরও বেশি প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
গণতন্ত্র ও সুশাসন,ইরাক নির্বাচন,ভোট
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close