reporterঅনলাইন ডেস্ক
  ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১

সিরিয়া নিয়ে পুতিনের সঙ্গে আসাদের বৈঠক

যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী মিত্র রাশিয়া। দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে সিরিয়ার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে মঙ্গলবার মস্কোতে বৈঠক করেছেন বাশার আল আসাদ।

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সানা বলেছে, দুই নেতা সিরিয়ায় সন্ত্রাসী ও বিদ্রোহী সংগঠনের নিয়ন্ত্রণাধীন ভূমি মুক্ত এবং তাদের লড়াই সমাপ্তির কৌশল নির্ধারণ বিষয়ে আলোচনা করেছেন। একইসঙ্গে সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায়  সিরিয়া ও রাশিয়ার সেনাবাহিনীর মধ্যে সমন্বয়ে জোর দিয়েছেন।

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টিভি এটিকে একটি দীর্ঘ বৈঠক হিসেবে বর্ণনা করেছে। এই বৈঠকের মাধ্যমে সিরিয়া ও রাশিয়ার পরস্পরের সম্পর্ককে বৃদ্ধি করেছে। দুই নেতার বৈঠকের সময় সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল আল-মাকদাদ এবং রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে মঙ্গলবার ক্রেমলিনের এক বিবৃতিতেতে বলা হয়, আসাদের সঙ্গে বৈঠকে জাতিসংঘের অনুমতি ব্যতিত এবং সিরিয়া সরকারের অনুমোদন ছাড়া বিদেশি সশস্ত্র বাহিনীর দেশটিতে অবস্থান এবং যুদ্ধের নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছে পুতিন।

বৈঠকে আসাদকে উদ্দেশ করে পুতিন বলেন, সন্ত্রাসীরা আপনার দেশের  মারাত্মক ক্ষতি করে চলেছে তারপরওআপনার নেতৃত্বাধীন সিরিয়ার সরকার ৯০ শতাংশ অঞ্চল নিয়ন্ত্রণ করছে।

অপরদিকে বাশার আল আসাদ রাশিয়ার নেতাকে সিরিয়ায় মানবিক সাহায্যের জন্য এবং সন্ত্রাসের বিস্তার রোধে সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান। সিরিয়ার দখলকৃত অঞ্চল মুক্ত করতে রাশিয়ান এবং সিরিয়ান সেনাবাহিনীর সাফল্যের প্রশংসা করেন আসাদ।

এসময় আসাদ সিরিয়ার ওপর কিছু দেশের নিষেধাজ্ঞাকে  “মানবতাবিরোধী” এবং “অবৈধ” বলেও বর্ণনা করেছেন।

২০১১ সালের মার্চ মাসে সরকারবিরোধী বিক্ষোভের মাধ্যমে শুরু সিরিয়ার সংঘাত শুরু হয়। পরবর্তীতে তা গৃহযুদ্ধে রূপান্তরিত হয়। এর মাধ্যমে দেশটির বহু মানুষ হত্যার শিকার এবং পূর্বাঞ্চলীয় জনসংখ্যার ২৩ মিলিয়ন মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়। যার মধ্যে রয়েছে পাঁচ মিলিয়ন উদ্বাস্তু।

গৃহযুদ্ধের পর থেকেই সিরিয়ায় রাশিয়ার রাজনৈতিক ও সামরিক সমর্থন অব্যাহত রেখেছে। গত সপ্তাহে দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর দেরায় সরকারি অবরোধ ও তীব্র যুদ্ধের অবসান ঘটাতে রাশিয়ার আলোচনায় যুদ্ধবিরতি চুক্তি কার্যকর হয় । চুক্তির ফলে ২০১৩ সালের পর এই প্রথম শহরে বিদ্রোহীদের দখলকৃত এলাকাগুলো সরকারি নিয়ন্ত্রণে আনা হল।

এক দশকের দীর্ঘ সিরিয়ার সংঘর্ষে আল-আসাদের সবচেয়ে শক্তিশালী মিত্র পুতিন। ২০১৫ সালে আল-আসাদের পক্ষে সিরিয়ার যুদ্ধের মোড় ঘুরিয়ে দিতে রাশিয়ার বিমান বাহিনী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, যা তাকে সশস্ত্র গোষ্ঠীর কাছে হারানো অধিকাংশ এলাকা পুনরুদ্ধারে সহায়তা করে।

যুক্তরাষ্ট্র গত বছর সিরিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। দেশটির কর্তপক্ষ জানায়, তাদের লক্ষ্য ছিল আল-আসাদকে যুদ্ধ বন্ধে বাধ্য করা এবং রাজনৈতিক সমাধানে রাজি করানো। যুক্তরাষ্ট্র প্রকাশ্য-অপ্রকাশ্যে বাশার আল আসাদ বাহিনীকে সহযোগিতা করে আসছিল। আলজাজিরা

পিডিএসও/ জিজাক

প্রতিদিনের সংবাদ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আসাদের বৈঠক,পুতিন,সিরিয়া
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
close