১০ বছর ধরে প্লাস্টিকের ঘরে বসবাস

প্রকাশ : ০১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৭:৫০ | আপডেট : ০১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:০৭

অনিক আহমেদ

সময়ের সাথে দেশ এগিয়ে গেলেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি অনেক প্রত্যন্ত অঞ্চলে। উন্নয়নশীল দেশের তকমা লাগলেও এখনো দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করছে দেশের অনেক মানুষ। এমনই একজন নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার বজরা গ্রামের বাসিন্দা নাজমা বেগম।

ইট-পাথরে গড়া বাড়িতে সমৃদ্ধ দেশে তিনি ১০ বছর ধরে বসবাস করছেন সিমেন্টের বস্তা দিয়ে তৈরি করা ঘরে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘ডু সামথিং ফাউন্ডেশনে’র মাধ্যমে মঙ্গলবার এসব তথ্য জানা যায়।

তারা জানান, নাজমা বেগমের স্বামী আবদুল ওহাব রিকশা চালাতেন। বর্তমানে অসুস্থতার জন্য তিন বছর ধরে ঘরে পড়ে আছেন। মানুষের বাড়িতে কাজ করে কোনোরকমে সংসার চালাচ্ছেন তার স্ত্রী নাজমা। তাদের ১৬ ও ১১ বয়সী দুই সন্তান এখনো উপার্জনক্ষম হয়নি। সামর্থ্যের অভাবে তাদের পড়াশোনাও বন্ধ হয়ে গেছে।

সরেজমিনে নাজমার বাড়ি ঘুরে দেখা যায়, তাদের বসবাসের ঘরটির খুবই জরাজীর্ণ অবস্থা। সিমেন্টের বস্তা দিয়ে চারপাশটা বেড়া দেওয়া হয়েছে। স্বামী, দুই সন্তান ও দেবরের বউ মিলে পাঁচজনের বসবাস ছোট্ট এই ঘরে। সামর্থ্যের অভাবে কিছুই করতে পারছেন না। সেজন্য ঘরটি করে দেওয়ার জন্য আকুতি জানিয়েছেন তিনি।

নাজমার ঘরটি তৈরি করতে প্রায় ৪০ হাজার টাকা প্রয়োজন। ইতোমধ্যে ডু সামথিং ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে ১৫ হাজার টাকা জোগাড় হয়েছে। বাকি ২৫ হাজার টাকার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেশের বিত্তবান মানুষের সহযোগিতা প্রত্যাশা করছেন তারা। সহযোগিতার জন্য যোগাযোগ ০১৬৪৮ ৭৮৬ ২৮৮

পিডিএসও/হেলাল